kalerkantho


নীলফামারীতে কর্মসূচির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রবাসী কল্যাণ সচিব

প্রশিক্ষিত জনগণ যাতে বিদেশে যায় সেজন্য সাহায্য করা দরকার

নীলফামারী প্রতিনিধি   

২০ মার্চ, ২০১৮ ২১:৩৯



প্রশিক্ষিত জনগণ যাতে বিদেশে যায় সেজন্য সাহায্য করা দরকার

নিম্ন আয় থেকে নিম্নমধ্য আয়ের দেশে উত্তরণের সক্ষমতা লাভ করার ঐতিহাসিক অর্জন উদযাপনে নীলফামারীতে সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচির উদ্বোধন করেছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. নমিতা হালদার। আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে জেলার কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন তিনি।

এ সময় সচিব নমিতা হালদার বলেন, ‘অপ্রশিক্ষিত বা একেবারে অদক্ষ কর্মী যখন বিদেশে যায়, ভাষাজ্ঞান থাকে না তখনই সে কিন্তু প্রতারিত হয়। প্রশিক্ষিত জনগণ যাতে বিদেশে যায় সেজন্য সাহায্য করা সবার দরকার। জাপানে একজন টেকনিক্যাল ইন্টার্ণ যে বেতন পায়, মধ্যপ্রাচ্যের যেকোনো দেশের কর্মীরা ১০ জন মিলেও সে বেতন পান না। যেখানে ভালো বেতন, প্রতারিত হবেন না সেখানে মানুষকে আমরা পাঠাব। কর্মীদেরকে যেন তেনভাবে যাতে বিদেশে না পাঠানো হয় এ বিষয়ে আমরা যথেষ্ট সচেষ্ট। তবে জনগণকেও এগিয়ে আসতে হবে।’ 

তিনি আরো বলেন,‘মন্ত্রণালয়ের কাজ প্রবাসীদের কল্যাণ এবং বৈদেশিক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা। প্রবাসীরা অনেকভাবে বিদেশে প্রতারিত হয়, পাসর্পোটের সমস্যা থাকে, মন্ত্রণালয় সেগুলো সমাধানে সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। নিম্নমধ্য আয়ের দেশে উত্তরণের সক্ষমতা লাভ করায় আমাদের সে কাজগুলো আরো টেকসই করা হচ্ছে।’

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খালেদ রহীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যর মধ্যে বক্তৃতা করেন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের উপসচিব আবেদ হাসান, জেলা পরিষদের সচিব সামসুল আযম, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রশিদুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মেহেদী হাসান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল হোসেন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে শেষ ধাপে তিন প্রবাসীর শিশুকে ২১ হাজার করে প্রবাসী শিশু বৃত্তি, মৃত চার প্রবাসীর মধ্যে তিনজনকে তিন লাখ করে ও একজনকে দেড় লাখ টাকার অনুদান, ড্রাইভিং প্রশিক্ষপ্রাপ্ত চারজনের মাঝে সনদ বিতরণ করেন  সচিব নমিতা হালদার।

এদিকে কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ বেলা ১১টার দিকে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে জেলা তথ্য দপ্তর। 

এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শাহীনুর আলম জানান, নিম্নমধ্য আয়ের দেশে উত্তরণের সক্ষমতা লাভ করার ঐতিহাসিক অর্জনকে উদযাপনে ২০ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সপ্তাহব্যাপী জেলা, উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের সকল দপ্তরে বিশেষ সেবা প্রদান ও সরকারের উন্নয়নমূলক চিত্র প্রদর্শনী, ২০ মার্চ জেলা উপজেলার সকল দপ্তরে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান, ২১ মার্চ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে শিশুদের চিত্রাঙ্কন, কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা, ২২ মার্চ বিকেল ৩টায় জেলা শহরে আনন্দ শোভাযাত্রা, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ২৩ মার্চ বিকেল ৪টায় নীলফামারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, একই মাঠে ২৪ মার্চ বিকেল ৩টায় টি-২০ ক্রিকেট ম্যাচ, ২৫ মার্চ নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালে সকাল ১০টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত রক্তের গ্রুপ নির্ণয়সহ বিভিন্ন চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে।



মন্তব্য