kalerkantho


নারীদের পিছিয়ে রেখে সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব নয় : স্পিকার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ মার্চ, ২০১৮ ২০:৫০



নারীদের পিছিয়ে রেখে সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব নয় : স্পিকার

তথ্য প্রযুক্তির অবাধ প্রবাহকে কাজে লাগিয়ে নারীদের দক্ষ ও সক্ষম করে তোলার আহ্বান জানিয়ে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, নারীদেরকে পিছিয়ে রেখে সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। সুযোগ তৈরি করে দিলে নারীরা এগিয়ে আসবে। অর্জিত হবে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি। আজ বুধবার গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলাস্থ ভরতখালী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ‘জনসচেতনতামূলক সভা ও সংবর্ধনা’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

স্পিকার বলেন, তারুণ্যের শক্তির পাশাপাশি নারী জনশক্তিকে সম্পৃক্ত করতে পারলে জীবনমান উন্নয়ন ও সামাজিক সূচক উন্নয়নে অনেক দূর এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ। নারী জনশক্তিকে উন্নয়ন প্রভাবক হিসেবে কাজে লাগানোর জন্য প্রয়োজন বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ। এ ছাড়াও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধের মাধ্যমে মাতৃমৃত্যু ও শিশুমৃত্যু হার কমিয়ে আনা সম্ভব। 

এ সময় তিনি বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারী সংস্থা, শিক্ষক সমাজ, নারী নেতৃবৃন্দ, অভিভাবক ও সকল স্তরের শিক্ষার্থীদের প্রতি জনসচেতনতামূলক কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি করার উদাত্ত আহ্বান জানান। 

শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি, বাংলার অর্থনৈতিক মুক্তির পথিকৃত, শোষণ ও ক্ষুধামুক্ত স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ ঐতিহাসিক ভাষণে বাংলার স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। দারিদ্রমুক্ত সমতার ভিত্তিতে সমাজ গঠনই ছিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের রাজনৈতিক জীবনের একমাত্র লক্ষ্য। পুরুষের পাশাপাশি নারীরা যাতে পিছিয়ে না পড়ে সে বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে জাতিকে তিনি উপহার দিয়েছিলেন বিশ্বসেরা এক অনন্য সংবিধান। জাতির পিতার স্বপ্নকে লালন ও ধারণ করে তাঁরই সুযোগ্য কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাঙ্খিত সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে নিরলস সংগ্রাম করে যাচ্ছেন।

গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, সংসদ সদস্য উম্মে কুলসুম স্মৃতি, গাইবান্ধা জেলার পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান প্রমূখ।



মন্তব্য