kalerkantho


চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্কুলছাত্রীকে বখাটের ছুরিকাঘাত

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি    

১৪ মার্চ, ২০১৮ ১৫:৫১



চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্কুলছাত্রীকে বখাটের ছুরিকাঘাত

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শহরের হুজরাপুর বাক্সপট্টি  এলাকায় আজ বুধবার সকালে প্রকাশ্য দিবালোকে এক বখাটের ছুরিকাঘাতে সাথী খাতুন (১৩) নামে ষষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী গুরুতর আহত হয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এই ঘটনায় অভিযুক্ত বখাটে মনিরুল ইসলামকে ধরতে শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তবে দুপুর ২টা পর্যন্ত তাকে ধরতে পারেনি পুলিশ। আহত স্কুলছাত্রী সাথী খাতুন চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের কামালউদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী। তার বাড়ি জেলা শহরের রেলবস্তি এলাকায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রেল বস্তি এলাকার আব্দুস সামাদের মেয়ে সাথী খাতুন ও তার বান্ধবী রোজিনা আজ বুধবার সকালে রিকসাযোগে স্কুলে যাচ্ছিল। সকাল পৌনে ১০টার দিকে তারা জেলা শহরের ব্যস্ততম সড়ক জলযোগ মোড়সংলগ্ন বাক্সপট্টি এলাকায় পৌঁছালে রেলবস্তি এলাকার ফাকু আলীর বখাটে ছেলে মনিরুল (২৫) তাদের গতিরোধ করে।

এ সময় হঠাৎ করেই সাথীর শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় মনিরুল। স্থানীয় লোকজন তাৎক্ষণিকভাবে সাথীকে উদ্ধার করে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডা.  খাইরুন নেসা জানান, ছাত্রীটির পেট, বাম পা ও ডান হাতে চারটি আঘাত রয়েছে। পেটের আঘাত দুটো গুরুতর। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠনো হয়েছে।

আহত ছাত্রী সাথী খাতুন হাসপাতালে সাংবাদিকদের জানায়, গত দুই দিন ধরে মনিরুল তাদেরকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর  মডেল থানার ওসি মো. মনজুর রহমান জানান, ঘটনার পরপরই বখাটে মনিরুলকে ধরতে তার রেলবস্তির বাড়িসহ শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। এ সময় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মনিরুলের স্ত্রী রুবিনা বেগম এবং দুই বোন শাহীন ও জাহানারাকে থানায় নিয়ে আনা হয়। খুব শিগরিই মনিরুলকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে বলে জানান তিনি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ইকবাল হোছাইন জানান, আহত স্কুলছাত্রী সাথী খাতুনের বাবা আবদুস সামাদ কিছুদিন আগে বখাটে মনিরুলকে মাদকসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে ধরিয়ে দিয়েছিলেন। সম্প্রতি সে জামিনে কারাগার থেকে বেরিয়ে আসে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এর জের ধরেই সাথীর ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। 

এদিকে, এই ঘটনায় ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে।

কামাল উদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খালেদা বেগম কাকলী জানান, এই ঘটনায় শিক্ষার্থীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি দ্রুত বখাটে মনিরুলকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবি  জানান।

এদিকে, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খান, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা  আব্দুল লতিব, সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তৌফিকুল ইসলাম কামাল উদ্দীন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে ছাত্রীদের সাহস দিয়েছেন।

 



মন্তব্য