kalerkantho


ঝালকাঠিতে শিল্পমন্ত্রী

প্রতিটি ক্ষেত্রে নারীদের এগিয়ে নিতে সরকার কাজ করছে

ঝালকাঠি প্রতিনিধি   

৯ মার্চ, ২০১৮ ০০:৫৯



প্রতিটি ক্ষেত্রে নারীদের এগিয়ে নিতে সরকার কাজ করছে

ছবি: কালের কণ্ঠ

প্রতিটি ক্ষেত্রে নারীদের এগিয়ে নিতে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। তিনি বলেন, নারীরা এখন আর অবহেলিত নয়, তাঁরা এখন সমাজ বির্নিমাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ঝালকাঠি শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে নারী মেলার সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

সর্বক্ষেত্রে নারীদের জাগরণ হয়েছে দাবি করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, সংসদের স্পিকার, মন্ত্রী, এমপি, ডিসি, এসপি, জজসহ সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা হচ্ছেন নারীরা। তাই নারীদের অবহেলার চোখে দেখার সুযোগ নেই।  

শেখ হাসিনা নারীদের মর্যাদা বৃদ্ধি করেছে মনত্মব্য করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, এক সময় পুরুষ শাসিত সমাজে সন্তানের পরিচয়ে মায়ের নামের কোন ভূমিকা রাখা হতো না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই প্রথা পরিবর্তন করে সন্তানের সকল পরিচিতির সঙ্গে মায়ের নাম যুক্ত করেছেন। ফলে নারীদের মর্যাদা বৃদ্ধি পেয়েছে।

বিভিন্ন ভাতা দিয়ে নারীদের সক্ষমতা সৃষ্টি করা হয়েছে জানিয়ে আওয়ামী লীগের এ প্রবীন নেতা বলেন, স্বামী মারা গেলে নারীরা বিধবা হয়, অনেক সময় পরিস্থিতির শিকার হয়ে স্বামী পরিত্যক্তাও হতে হয়। বর্তমান সরকার যে বিভিন্ন ভাতা প্রদান করছে, তাতেও নারীদের প্রতি বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে। নানা ক্ষেত্রে সরকার নারীদের সম্মান বৃদ্ধি করে আসছে। যার কারণে নারী জাগরণের সৃষ্টি হয়েছে।

শিল্পমন্ত্রী অভিযোগ করেন, ধর্মান্ধসহ একটি বিশেষ গোষ্ঠী নারীর অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করাসহ দেশকে পেছনের দিকে ঠেলে দিতে নানা ধরনের ষড়যন্ত্র করে আসছে। তারা শুধু নারী জাগরণের শত্রু নয়। তারা দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতিরও শত্রু। এই অশক্তির ব্যাপারে সবাইকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে এবং প্রয়োজনে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সরদার মো. শাহ আলম, পুলিশ সুপার মো. জোবায়েদুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির, পৌর মেয়র লিয়াকত আলী তালুকদার। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন নারী নেত্রী শারমিন মৌসুমি কেকা, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন ও প্রোগ্রাম অফিসার নাসরিন আক্তার। পরে শিল্পমন্ত্রী নারী মেলায় অংশগ্রহণকারীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।



মন্তব্য