kalerkantho


ফরিদপুরে পৃথক অগ্নিকাণ্ডে শিশুর মৃত্যু, পুড়ল ১৩ ঘর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

৮ মার্চ, ২০১৮ ২২:০৪



ফরিদপুরে পৃথক অগ্নিকাণ্ডে শিশুর মৃত্যু, পুড়ল ১৩ ঘর

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় পৃথক অগ্নিকাণ্ডে ১২ জন কৃষকের বসতবাড়িসহ ১৩টি ঘর পুড়ে গেছে। রিতু আক্তার (৫) নামে পাঁচ বছরের এক শিশুও আগুনে পুড়ে মারা গেছে। আগুন নেভাতে গিয়ে অগ্নিদগ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন ওই শিশুর দাদা ইসমাইল মোল্লা (৬৫) ও দাদি তাসলিমা বেগম (৬০)। আহতদের ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার ভাঙ্গার হামিরদী ইউনিয়নের মাধবপুরে এবং গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে আলগী ইউনিয়নের চরকান্দা গ্রামে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার  দিকে উপজেলার হামিরদী ইউনিয়নের মাধবপুর গ্রামে অগ্নিকাণ্ডে দুই কৃষক ইসমাইল মোল্লা ও আব্দুল হাই এর দুটি বসতঘর, দুটি রান্না ঘর এবং একটি গোয়াল ঘর পুড়ে যায়। এ ছাড়াও আগুনে ইসমাইলের নাতনি আছেল মোল্লার মেয়ে রিতু বসতঘরের মধ্যেই ঘুমন্ত অবস্থায় পুড়ে মারা যায়। আগুন নেভাতে গিয়ে পুড়ে আহত হন ইসমাইল মোল্লা ও তাঁর স্ত্রী তাসলিমা। তাদের ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পরে ভাঙ্গা থেকে দমকল বাহিনীর একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নেভায়। 

দমকল বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, এ অগ্নিকাণ্ডে চার লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার আলগী ইউনিয়নের চরকান্দা গ্রামে আগুন লেগে পুড়ে যায় কৃষক শামীম সিকদার, ইকবাল সিকদার, শাহেদ আলী সিকদার ও সালাম সিকদারের চারটি বসতঘর ও চারটি রান্না ঘর। 

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে আলগী ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি চেয়ারম্যান কাওসার ভূঁইয়া বলেন, এ অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ছয় লক্ষাধিক টাকার সম্পদ পুড়ে গেছে। 

এ ব্যাপারে ভাঙ্গা দমকল বাহিনীর ইনচার্জ নূর মোহাম্মদ বলেন, দুটি অগ্নিকাণ্ডই রান্না ঘরের আগুন থেকে সূত্রপাত হয়। মুহূর্তের মধ্যে আগুন আশেপাশের বাড়িঘরে ছড়িয়ে পড়ে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।



মন্তব্য