kalerkantho


বোয়ালমারীতে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ৩০

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

৮ মার্চ, ২০১৮ ১৮:২১



বোয়ালমারীতে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ৩০

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার পরমেশ্বরদী ইউনিয়নের পুতুমতিপাড়ায় তুচ্ছ ঘটনায় দুই পক্ষের কথা কাটাকাটির জের ধরে দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুলিশের এক এসআই ও দুই পুলিশ সদস্যসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন। এ সময় পুলিশ শটগানের ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে পুতুমতিপাড়া ও পাশের রূপাপাত ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া গ্রামবাসীর মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনায় জড়িত উভয় পক্ষের আটজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছে। এ ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত আটজনকে আজ বৃহস্পতিবার আদালতের নির্দেশে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বুধবার পুতুমতিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠান শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন চলছিল। এ সময় ওই স্কুলের দুই গ্রামের শিক্ষার্থীদের আগে-পরে গান গাওয়াকে কেন্দ্র করে তেঁতুলিয়ার জাহিদ খালাসীর সমর্থকদের সাথে  পুতুমতিপাড়া বিল্লাল ফকির পক্ষের লোকজনের কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের লোকজন ঢাল ও সড়কিসহ দেশিয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পরমেশ্বরর্দী ইউনিয়নের ডহরনগর পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই সিরাজুল ইসলাম পুলিশ নিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করেন। এ সময় এসআই সিরাজুল ইসলাম, কনস্টেবল গফফার মোল্লা (৩৫) ও লিয়াকত আলী (৩৮) আহত হয়। খবর পেয়ে বোয়ালমারী থানার ওসি মো. মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে শটগানের সাত রাউন্ড গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। 

এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে জাহিদ খালাসীর সমর্থক পুতুমতিপাড়া গ্রামের মনিরুজ্জামান (৩৫), মো. আলামিন (২৬) ও বিল্লাল ফকির গ্রুপের তেতুলিয়া গ্রামের আমিনুল মুন্সি (২৬), সাইফুল (৩০) ও মো. দুলাল মোল্লাসহ মোট আটজনকে আটক করে। এ ঘটনায় ওই রাতেই এসআই সিরাজুল ইসলাম বাদী হয়ে বিল্লাল ফকির ও জাহিদ খালাসীসহ ২৩ জনের নাম উল্লেখ এবং আরও ৫০-৬০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে সরকারি কাজে বাধা প্রদান ও পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে থানায় মামলা করেন।  

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বোয়ালমারী থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ওই এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। আটক আটজনকে ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ আদালতের নির্দেশে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।


মন্তব্য