kalerkantho


সৈয়দপুরে আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ঢেউটিন ও নগদ অর্থ বিতরণ

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০১:৪৪



সৈয়দপুরে আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ঢেউটিন ও নগদ অর্থ বিতরণ

ছবি: কালের কণ্ঠ

সৈয়দপুর উপজেলার ৫ নম্বর খাতামধুপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের আরাজি খাতামধুপুর পানিশালা গ্রামে গত সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যার সংঘটিত অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ৯টি পরিবারের মাঝে ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের দেয়া ঢেউটিন ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে ওই ঢেউটিন ও নগদ প্রদান করা হয়।

নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-কিশোরীগঞ্জ একাংশ) আসনের সংসদ সদস্য ও বিরোধীদলীয় হুইপ আলহাজ মো. শওকত চৌধুরী উপস্থিত থেকে ওই ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন। এ সময় সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. বজলুর রশীদ, খাতা মধুপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জুয়েল চৌধুরী, জাপা নেতা মো. রাকিবসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বিতরণকৃত ত্রাণ সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ৯টি পরিবারের প্রত্যেককে তিন বান্ডিল করে ঢেউটিন এবং নগদ ৯ হাজার করে টাকা। এর আগে গত সোমবার রাতে সৈয়দপুর উপজেলা প্রশাসনের পড়্গ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। বিতরণকৃত ত্রাণ সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে চাল, ডাল, চিনি, লবণ, টোস্ট, মুড়ি, চিড়া, ম্যাচ ও মোমবাতি, ২টি করে কম্বল।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার সন্ধ্যায় সংঘটিত আগুনে উল্লিখিত উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের উল্লিখিত গ্রামের নুর আলম, নুর হানিফ, নুর হুদা, রবিজোন, নুর আমিন, মাজেদুল, মাহামুদ, নুর ইসলাম ও লুৎফর রহমানসহ ৯টি পরিবারে ৩১টি টিনের খড়ের ঘর, গরু-ছাগল, হাঁসমুরগী, মূল্যবান আসবাবপত্র, কাপড়-চোপড়, ধান, চাল, পাট, তামাক ও নগদ অর্থ পুড়ে যায়।

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর সদস্যরা তাদের পরনে থাকা কাপড় ছাড়া কোনো কিছুই আগুনের হাত রক্ষা করতে পারেনি। খবর পেয়ে রংপুরের তারাগঞ্জ দমকল বাহিনীর সদস্যরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনের সঠিক কারণ জানা না গেলেও বৈদ্যুতিক সর্ট সাকিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে অনেকে ধারণা করেন।



মন্তব্য