kalerkantho


জবিতে সরস্বতী পূজা উদযাপন

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৭:৫৬



জবিতে সরস্বতী পূজা উদযাপন

ছবি : কালের কণ্ঠ

ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনা আর নানা আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) উদযাপিত হয়েছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব সরস্বতী পূজা। প্রতিবারের মত এবারো বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় পূজা কমিটির উদ্যোগে এ পূজার আয়োজন করা হয়। পূজা উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গনে নামে মানুষের ঢল।

আজ সোমবার সকাল থেকে এক যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৪টি পূজা মন্ডপে পুরোহিত ও শিক্ষার্থীদের অংশ গ্রহণে পূজা-প্রার্থনা শুরু করা হয়। উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পূজা মন্ডপসমূহ পরিদর্শন করেন।

সনাতন ধর্মমতে, শ্বেতশুভ্র রাজহংসের পিঠে চড়ে জ্ঞানের আলো ছড়াতে পৃথিবীতে আসেন বিদ্যাদেবী সরস্বতী। সৌম্যাবয়ব, শুভ্র বসন, বীণা ধারিণী এই দেবী বাঙালির মানসলোকে এমন এক প্রতিমূর্তিতে বিরাজিত, যেখানে কোনো অন্ধকার নেই, নেই অজ্ঞতা বা কুসংস্কারের কালো ছায়া। দেবীর আগমন উপলক্ষে সনাতন ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থীরা পূজামন্ডপে দেবীর প্রতিমা স্থাপন করে। এ পূজা এখন শুধুমাত্র সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। এটা এখন একটি অসাম্প্রদায়িক উৎসবে পরিণত হয়েছে। এ উৎসব সনাতন ও মুসলিম উভয় ধর্মাবলম্বী মানুষ সমানভাবে উপভোগ করছে। সনাতন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সঙ্গে মুসলিম শিক্ষার্থীরাও এই পূজা আয়োজনের মাধ্যমে বিদ্যাদেবীকে সন্তুষ্ট করে শিক্ষা অর্জনের পথ সুগম করতে ব্যস্ত।

এদিকে প্রতিবারের মতো এবারো জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পুরান ঢাকা কেন্দ্রীক সরস্বতী পূজার আয়োজন করেন। সে কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি পুরান ঢাকার বিভিন্ন স্থানের মানুষের ঢল নেমেছে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে। এখানেও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পাশাপাশি মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের ভীড়। সবাই একই সাজে সজ্জিত, হিন্দু-মুসলিমের মধ্যে কোনো ভেদাভেদ লক্ষ করা যাচ্ছে না। সবাই এক সাথে পূজা মন্ডপে সামনে বসছে আবার এক সাথে নেচে গেয়ে পূজা উৎসব উপভোগ করছে।

এবার সরস্বতী পূজা উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় মোট ৩৪টি পূজা মন্ডপ তৈরি হয়েছে। পূজা উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় আলোকসজ্জার ব্যবস্থা করা হয়। এছাড়াও সমাজকর্ম বিভাগের উদ্যোগে দরিদ্র শিশুদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান।

প্রসঙ্গত, পূজা মন্ডপ পরিদর্শন শেষে উপাচার্য মহোদয়ের সভাকক্ষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বিভিন্ন অনুষদের ডিন, ইনস্টিটিউটের পরিচালক, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, জবি শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ তরিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদিন রাসেল ও কর্মচারিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য