kalerkantho


ইবিতে পিঠা উৎসব

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২১ জানুয়ারি, ২০১৮ ২০:৪৪



ইবিতে পিঠা উৎসব

ছবি : কালের কণ্ঠ

‘বাঙালিয়ানায় সাজবো সাজ, পিঠা উৎসবে মাতব আজ’ শ্লোগানকে সামনে রেখে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে দিনব্যাপী ‘পিঠা উৎসব’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের ১৯ তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা এ পিঠা উৎসবের আয়োজন করে।  

পিঠা উৎসবে বাঙালির ঐতিহ্যবাহী পুলি পিঠা, পাটি সাপটা, জামাই পিঠা, বেনি পিঠা, পাকান পিঠা, ভাপা পিঠা, কমলা সুন্দরী, তালের বড়া, নকঁশী পিঠা, সেমাই পুলি পিঠা, রস পিঠা, সবজি পাকান, ছিটা রম্নটি, শামুক পিঠা, ডিম পিঠাসহ ২৩ রকমের পিঠার আয়োজন করে শিক্ষার্থীরা।

আয়োজন কারীরা জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ে অনেক মায়ের সন্তান পড়াশোনা করে। সকল মায়ের সন্তানদের নিয়ে আমরা একটি পরিবার। এবছর এখনো শীতকালীন ছুটি না পাওয়ায় অধিকাংশ শিক্ষার্থী বাড়িতে পিঠা খেতে যেতে পারেনি। তাই নিজেদের দুঃখ ভুলে অনন্দে থাকার চেষ্টার জন্যই এই আয়োজন। 

উৎসবের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আশকারি। হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. জাকির হোসেনের সঞ্চালনায় এবং বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. সেলিনা নাসরিনের সভাপতিত্বে পিঠা উৎসবে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আব্দুল লতিফ। 

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান, হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্যপদ্ধতি বিভাগের অধ্যাপক ড. অরবিন্দ সাহা, ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের সভাপতি সহকারী অধ্যাপক সুতাপ কুমার ঘোষ, ফলিত পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শেখ শাহিনুর রহমান প্রমুখ। 

পিঠা উৎসবের উদ্ভোধনকাল উপাচার্য অধ্যাপক ড. রাশিদ আসকারী বলেন, পিঠা উৎসবের মাধ্যমে বাঙালির কিছু হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্য রক্ষা হচ্ছে। এই ধরণের উৎসব বাঙ্গালি সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যম। এরকম ভিন্ন ধর্মী আয়োজনের মধ্যদিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে সকল প্রকার সাংস্কৃতিক চর্চা অব্যাহত থাকবে।



মন্তব্য