kalerkantho


চারঘাটে আ’লীগের দু'পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় নিহত ১

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ২১:৫২



চারঘাটে আ’লীগের দু'পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় নিহত ১

প্রতীকী ছবি

রাজশাহীর চারঘাটে মাদ্রাসার সভাপতি মনোনয়নকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় আহত মকলেছুর রহমান মারা গেছেন। তিনি ইউসুফপুর ইউনিয়নের ওয়ার্ড সদস্য আব্দুল মালেকের ছোট ভাই। আজ শনিবার দুপুর ১২টার দিকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিত্সাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। পরে মকলেছুরের লাশের ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। 

এদিকে মকলেছুরের মৃত্যুর ঘটনায় চারঘাটে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নগরীর মতিহার থানার ওসি মেহেদী হাসান রেন্টু। তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, ওই ঘটনায় অপরপক্ষ চারঘাটের ইউসুফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিউল আলম রতন বাদী হয়ে আগেই তার ওপর হামলার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন। তবে প্রতিপক্ষের মকলেছুর রহমানের মৃত্যুর ঘটনায় এখন চেয়ারম্যানসহ অন্যদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। 

প্রসঙ্গত, চারঘাট উপজেলার গোবিন্দপুর দাখিল মাদ্রাসার সভাপতি মনোনয়নকে কেন্দ্র করে গত ১৫ জানুয়ারি ইউসুফপুর ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দুলাল সরকারের নেতৃত্বে চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিউল আলম রতনের ওপর হামলা চালানো হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে চেয়ারম্যানের লোকজনও দুলাল সরকার ও তাঁর লোকজনের ওপর হামলা করে। 

হামলা-পাল্টাহামলার ঘটনায় ইউসুফপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিউল আলম রতন, দুই নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মোশাররফ হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দুলাল সরকার ও ইউপি সদস্য মালেকের ছোট ভাই মকলেছুর রহমানসহ অন্তত ১০ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে চারজনকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মকলেছুর রহমান। 

 



মন্তব্য