kalerkantho


লক্ষ্মীপেঁচার প্রতি 'পাখি পল্লব' দলের ভালোবাসা

শেরপুর প্রতিনিধি   

২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৭:৪৮



লক্ষ্মীপেঁচার প্রতি 'পাখি পল্লব' দলের ভালোবাসা

ছবি : কালের কণ্ঠ

দুরন্ত এক ছেলের হাত থেকে জীবন রক্ষা পেয়েছে দুর্লভ প্রজাতির আহত এক লক্ষ্মীপেঁচার। স্থানীয় ‘পাখি পল্লব’ দলের সদস্যরা সেই লক্ষ্মীপেঁচা পাখিটি উদ্ধার করে চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ্য করে তুলেছেন। আজ শনিবার উদ্ধারকৃত লক্ষ্মীপেঁচা পাখিটি বনবিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন পাখি পল্লব সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুজয় মালাকার।

তিনি জানান, প্রতি শুক্রবারের মতো গত শুক্রবার ছুটির দিনে সদর উপজেলার চর জঙ্গলদী গ্রামে ‘পাখি পল্লব’ দলের কয়েকজন পাখির ছবি তুলতে বের হন। সেখানে গিয়ে ওই লক্ষ্মীপেঁচা পাখিটি নাইলনের দড়ি দিয়ে বাঁধা অবস্থায় দেখতে পান। ওই গ্রামের আল আমিন নামে নবম শ্রেণীর এক ছাত্র কয়েকদিন আগে বাড়ির পাশে গাছে পাখিটি দেখতে পেয়ে এটিকে ধরে। এসময় পাখিটি ঠোঁটের ওপরে এবং ডানায় গুরুতর আঘাত পায়। 

পরে পাখিটির পায়ে নাইলনের দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখে। ফলে এটির পায়েও জখম হয়। এমনকি খাবার এবং চিকিৎসার অভাবে পাখিটি অসুস্থ হয়ে পড়ে। গ্রামের রাস্তার অদুরে বাঁধা অবস্থায় পাখিটি দেখতে পেয়ে ‘পাখি পল্লব’ দলের সদস্যরা ওই স্কুলছাত্রের বাড়িতে গিয়ে তাকে সরকারী আইন অনুসারে বনের পাখি ধরা নিষেধের কথা জানায়। সেসময়  তাকে বুঝিয়ে পাখিটি তার কাছ থেকে নিয়ে আসা হয়। পরে তারা স্থানীয় পশু হাসপাতাল, পশু সম্পদ বিভাগ এবং বনবিভাগের অফিসে নিয়ে গেলেও সরকারি ছুটির দিন হওয়ায় ওইসব অফিসে দায়িত্বরত কাউকে পাওয়া যায়নি। 

অবশেষে স্থানীয় এক পশু চিকিৎসককে দিয়ে পাখিটির চিকিৎসা করায়। বর্তমানে লক্ষ্মীপেঁচা পাখিটি মোটামুটি সুস্থ। তবে পাখিটি ভালো করে উড়তে পারে না। পাখি পল্লব সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুজয় মালাকার জানান, উদ্ধারকৃত আহত লক্ষ্মীপেঁচা পাখিটি বর্তমানে তার মুন্সীবাজারের বাসায় রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আগামীকাল রবিবার বনবিভাগের কাছে পাখিটি হস্তান্তর করা হবে। 

 


মন্তব্য