kalerkantho


বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়

শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের নিরঙ্কুশ জয়

রংপুর অফিস   

১৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ২৩:৫৮



শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের নিরঙ্কুশ জয়

ছবি: কালের কণ্ঠ

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির কার্যকরী পরিষদের নির্বাচন হয়েছে আজ মঙ্গলবার। নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের প্যানেল থেকে সভাপতি পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার ও সাধারণ সম্পাদক গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তাবিউর রহমান প্রধান নির্বাচিত হয়েছেন। ওই প্যানেলের ১৫ প্রার্থীর মধ্যে ১৫ জনই নির্বাচিত হয়েছেন।

অন্য নির্বাচিতরা হলেন- সহ-সভাপতি ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আলী রায়হান সরকার, কোষাধ্যক্ষ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. নুর আলম সিদ্দিক, যুগ্ম-সম্পাদক ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আতিউর রহমান, সদস্য ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান, অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক খন্দকার জাহাঙ্গীর আলম নিরব, গণিত বিভাগের অধ্যাপক ড. আর এম হাফিজুর রহমান সেলিম, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোস্তাফিজার রহমান রিপন, পরিসংখ্যান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বিপুল হোসেন, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রভাষক প্রদীপ কুমার সরকার, গণিত বিভাগের বিভাগীয় প্রধান কমলেশ চন্দ্র রায়, ফাইন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাখাওয়াত হোসেন, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. পরিমল চন্দ্র বর্মণ এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সাইদুর রহমান।

এই নির্বাচনে এবার আওয়ামী পন্থী দুটি প্যানেল মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ এবং নীল দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। নীল দলও নির্বাচনে তাদের প্যানেল থেকে ১৫ জন প্রার্থী দিয়েছিল।

সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় তৃতীয় অ্যাকাডেমিক ভবনের ৩০২ নম্বর কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুদ রানা জানান, কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের নিরঙ্কুশ জয়ের বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি তিনি জানান, মোট ১৫৩ ভোটারের মধ্যে ১৩৪ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।



মন্তব্য