kalerkantho


সাত দফা দাবিতে রংপুরে জাতীয় আদিবাসী পরিষদের গণঅবস্থান

রংপুর অফিস   

১৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৯:০৩



সাত দফা দাবিতে রংপুরে জাতীয় আদিবাসী পরিষদের গণঅবস্থান

সাহেবগঞ্জ-বাগদাফার্মের সাঁওতাল আদিবাসী-বাঙ্গালিদের পৈত্রিক সম্পত্তি ফেরতের দাবিতে আজ মঙ্গলবার রংপুরে গণঅবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে জাতীয় আদিবাসী পরিষদ। ২০১৬ সালের ৬ নভেস্বর গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের সাহেবগঞ্জ-বাগদাফার্মের নামে কেড়ে নেওয়া বাপ-দাদার জমিতে আদিবাসী-বাঙ্গালিদের বসতির ওপর পুলিশের গুলিতে শ্যামল হেমব্রম, মঙ্গল মার্ডী ও রমেশ টুডুকে হত্যা, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট, আবাদি ফসল নষ্ট, ঘরবাড়ি ভাঙচুর ও নির্যাতন করা হয়। এর বিচার এবং ক্ষতিপূরণসহ সাত দফা দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে তারা আজ মঙ্গলবার সকাল ১১টায় রংপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে এ কর্মসূচি পালন করে।

সাত দফা দাবির মধ্যে রয়েছে সাহেবগঞ্জ-বাগদাফার্ম-এর বিক্যুইজিশন করা ১৮৪২.৩০ একর সম্পত্তি আদিবাসী-বাঙ্গালিদের ফেরত, আদিবাসীদের সম্পত্তি কোনো সরকারের পক্ষে রিক্যুইজিশন করা এখতিয়ার বহির্ভূত হওয়ায় এ ধরনের কার্য বাতিল ও পৃথক ভূমি কমিশন গঠন, ঘরবাড়িতে ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট এবং গুলি করে নিহত ও গুরুতর আহত করার সাথে জড়িত উস্কানিদাতা ও সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং নিহত ও আহতদের জন্য ক্ষতিপূরণ, ওই ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত আদিবাসী-বাঙ্গালিদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, আদিবাসী-বাঙ্গালি নারী-পুরুষের উপর স্থানীয় সন্ত্রাসীদের জুলুম ও পুলিশি হয়রানি বন্ধ, আদিবাসী সাঁওতালদের বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগকারী চিহ্নিত পুলিশ কর্মকর্তাসহ জড়িতদের বিচার ও ২০০৪ সালে সুগার মিল বন্ধের পর প্রভাবশালীদের মাঝে লিজের নামে যে অর্থআত্মসাৎ ও দুর্নীতি হয়েছে তার আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ। 

আরো পড়ুন-গ্রামীণ ব্যাংকের মাঠকর্মীকে কুপিয়ে জখম, ছিনতাইকারী আটক

জাতীয় আদিবাসী পরিষদ রংপুর জেলা শাখার সভাপতি এ্যাডভোকেট মনিলাল দাসের সভাপতিত্বে এই কর্মসূচিতে আরও বক্তব্য রাখেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের উপদেষ্টা ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির রংপুর জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য অশোক সরকার, আদিবাসী ছাত্র পরিষদের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি বিভ‚তী ভ‚ষণ মাহাতো, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাবেক সভাপতি পরিমল মাহাতো, সভাপতি রাজিব কুমার মাহাতো প্রমূখ। 

এ ছাড়াও কর্মসূচির সঙ্গে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ রংপুর জেলা সমন্বয়ক আব্দুল কুদ্দুস, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ রংপুর মহানগর শাখার সভাপতি গৌতম রায়, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি রংপুর জেলা সাধারণ সম্পাদক শাহিন রহমান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ রংপুর মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মন্ডল, জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক তৌহিদুর রহমান টুটুল, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ রংপুর জেলা সভাপতি রথীশ চন্দ্র ভৌমিক, পীরগঞ্জ ভূমিহীন কল্যাণ সমিতির সভাপতি রোজিনা সরেন, সাধারণ সম্পাদক দেলওয়ার হোসেন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট রংপুর জেলা কমিটির সদস্য প্রহলাদ রায় ও রংপুর আদিবাসী সাংস্কৃতিক সংঘের সভাপতি বুধু ধানোয়ার।  

বক্তারা বলেন, অবিলম্বে সাহেবগঞ্জ-বাগদাফার্মের আদিবাসী-বাঙ্গালিদের সম্পত্তি ফেরত দিতে হবে। এছাড়া ওই হামলায় তিনজন আদিবাসীকে হত্যা, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট, নির্যাতনের সাথে জড়িত সকলের বিচার ও শাস্তিসহ ঘটনার মূল মদদদাতা স্থানীয় এমপি আবুল কালাম আজাদ ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাকিল আকন্দ বুলবুলের শাস্তি দাবি করেন তারা।



মন্তব্য