kalerkantho


আশুলিয়ায় শ্রমিকদের কাজে উৎসাহ যোগাতে পিঠা উৎসবের আয়োজন

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

১৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ২৩:২২



আশুলিয়ায় শ্রমিকদের কাজে উৎসাহ যোগাতে পিঠা উৎসবের আয়োজন

ছবি: কালের কণ্ঠ

সারা বছর শুধু কাজ নয়, শ্রমিকদের জীবনে একটু বিনোদনও প্রয়োজন- এই বিষয়টি অনুধাবন করে আশুলিয়ার একটি তৈরি পোশাক কারখানায় উৎপাদনে শ্রমিকদের উৎসাহ বাড়ানোর লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী পিঠা উৎসব।

মূলত: তৈরি পোশাক কারখানায় উৎপাদনে শ্রমিকদের উৎসাহ বাড়ানোর লক্ষ্যে সোমবার সকালে আশুলিয়ার জিরাবো বটতলা এলাকায় সাউদার্ন ক্লথিংস লিমিটেড কারখানার মালিকপক্ষ শ্রমিকদের নিয়ে এ পিঠা উৎসবের আয়োজন করেন। আনুষ্ঠানিকভাবে ফিতা কেটে এ পিঠা উৎসবের উদ্বোধন করেন সাউদার্ন ক্লথিংস লিমিটেডের চেয়ারম্যান খন্দকার ইলিয়াস হোসেন।

পোশাক কারখানাটির চেয়ারম্যান খন্দকার ইলিয়াস হোসেন বলেন, পোশাক কারখানায় সারা জীবনে শ্রমিকরা উৎপাদনে ব্যস্ত সময় পার করেন। ভোর বেলা সামান্য নাস্তা মুখে গুজেই তারা দায়িত্ব পালনে কারখানায় ছুটে আসে। আর বাসায় ফিরে রাতের বেলা। তাই স্বাভাবিক কারণেই তাদের বিনোদনের কোনো সুযোগ থাকে না। আর সে কারণেই অন্তত একটি দিনের জন্য শ্রমিকদের বিনোদন দেওয়ার লড়্গ্যে এই পিঠা উৎসবের আয়োজন। এ ছাড়া শ্রমিকদের বিনোদন দিতে পারলে তারা উৎপাদনে আরো অবদান রাখতে পারবে।

শ্রমিকরা জানিয়েছে, তাদের জন্য মালিক পক্ষ পিঠা উৎসব করায় তারও খুশি। কারখানার প্রায় ১ হাজার ২০০ শ্রমিক তাদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এ পিঠা উৎসবে যোগ দেন।

পাঁচ তলা ভবনের ছাদে এ পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। পিঠা উৎসবে এ সময় গ্রাম বাংলার বিভিন্ন রকমের প্রায় ২০টি পিঠার স্টল বসে। স্টলগুলোতে যে সকল পিঠা ছিলো তার মধ্যে অন্যতম ছিল- কুলি পিঠা, ভাপা পিঠা, চিতই পিঠা, লিচু পিঠা, বকুল পিঠা, তক্তি পিঠা, তাল পিঠা, কাঠা পিঠাসহ হরেক রকমের পিঠা।

পিঠা উৎসবে এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন কারখানাটির পরিচালক খন্দকার ফারিহা, রাকিব হোসেন, খন্দকার এলিন, তানভীর হোসেন, জেনারেল ম্যানেজার জালালী ইকরাম সুজনসহ আরো অনেকে।



মন্তব্য