kalerkantho


জামালপুরে ফসলি জমি থেকে জোরপূর্বক মাটি কেটে নিচ্ছে ভূমিদস্যুরা

জামালপুর প্রতিনিধি   

৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৭:৫০



জামালপুরে ফসলি জমি থেকে জোরপূর্বক মাটি কেটে নিচ্ছে ভূমিদস্যুরা

ছবি : কালের কণ্ঠ

জামালপুর সদর উপজেলার শরিফপুর ইউনিয়নের জয়রামপুর এবং লক্ষ্মীরচর ইউনিয়নের ভাটিপাড়া এলাকায় পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের দুইপাড়ের ফসলি জমি থেকে জোরপূর্বক মাটি কেটে নিচ্ছে এলাকার প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা। ফসলি জমিতে ভেকো মেশিন বসিয়ে মাটি কেটে নেয়ায় বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হচ্ছে। ফসলি জমি থেকে মাটি কেটে নেওয়ায় এবার ফসল করতে পারেনি ওই এলাকার শতশত কৃষক।

ক্ষতিগ্রস্ত ফসলি জমির মালিকদের অভিযোগ, জয়রামপুর এলাকার ভূমিদস্যু জালাল উদ্দীন, আলাল উদ্দীন, দুলাল মিয়া ও জিয়াউল হক জোরপূর্বক জমি থেকে ভেকো মেশিন দিয়ে মাটি উত্তোলন করে অন্যত্র বিক্রী করছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে জমির মালিকরা মাটি উত্তোলন বন্ধ করতে বললে স্থানীয় ভূমিদস্যুরা তাদের মারধর করেছে। এ খবর পেয়ে জামালপুর থেকে বিভিন্ন গণমাধ্যমের সংবাদ কর্মীরা সেখানে গেলে ওই ভূমিদস্যুরা সংবাদ কর্মীদেরকে পেশাগত দায়িত্ব পালনে বাঁধা এবং প্রাণনাশের হুমকী দিয়েছে বলে জানাগেছে।

সদর উপজেলার লক্ষ্মীরচর ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশ আব্দুর রাজ্জাক জানান, তার বাড়ি সদর উপজেলার ভাটিপাড়া গ্রামে। ভেকো মেশিন দিয়ে জোরপূর্বক মাটি কেটে নেওয়ায় তার ১৭ শতাংশ জমির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। জমিতে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ওই জমি আগামী ১০ বছরের মধ্যে আবাদযোগ্য হবার সম্ভাবনা নেই বলেও মনে করেন তিনি। তার অভিযোগ, মাটি কাটা বন্ধের কথা বলায় তাকে প্রাণনাশের হুমকী দিয়েছে ভূমিদস্যুরা।

ভাটিপাড়া গ্রামের কৃষক মতিউর রহমান অভিযোগ করে বলেন, তার ১৬ বিঘা জমি থেকে ভেকো মেশিন দিয়ে মাটি উত্তোলন করা হচ্ছে। মাটি উত্তোলন করে বিক্রী করে প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা লাভবান হলেও তার জমি ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এবার তিনি ওইসব জমিতে কোন ফসল আবাদ করতে পারেন নি।

জামালপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. মো. মফিজুর রহমান বলেন, ব্রহ্মপুত্র নদের দুইপাড়ের ফসলি জমি থেকে মাটি ও বালি উত্তোলন বন্ধের জন্য সেখানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 



মন্তব্য