kalerkantho


চাঁদপুরে সড়কের বেহালদশা কাটবে অচিরেই!

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৯:৫৩



চাঁদপুরে সড়কের বেহালদশা কাটবে অচিরেই!

ছবি : কালের কণ্ঠ

বৃষ্টি কমে গেলেও চাঁদপুর শহরের ইলিশ চত্বর থেকে ওয়্যারলেস এলাকা পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার সড়ক যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এতে চরম দুর্ভোগে এই সড়কে যাতায়তকারী যানবাহনসহ যাত্রী সাধারণ। এদিকে, টানা তিনদিনের অকাল বৃষ্টিতে পুণ:নিমাণাধীন চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের এই এলাকার দুর্ভোগের চিত্র নিয়ে গত দুইদিন ধরে সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা চলছে। বেহাল সড়কটি দ্রুত মেরামত করে যানবাহন চলাচলের উপযোগী করতে বিভিন্নজন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মনোযোগ আকর্ষণ করেছেন। তবে পরিস্থিতির আলোকে নড়েচড়ে বসেছেন সড়ক বিভাগের কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার।

চাঁদপুর সড়ক বিভাগ সুত্র জানিয়েছে, পাঁটটি প্যাকেজে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের পুর্ণ:নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। এরমধ্যে চাঁদপুর শহরের ইলিশ চত্বর থেকে ওয়্যারলেস পর্যন্ত ১৭ শ' মিটার সড়কের জন্য সাড়ে ৫ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়। ঠিকাদার কাজ শুরুর মধ্যেই হঠাৎ বৃষ্টিতে এই সড়কের বেশ কিছুস্থান ভেঙে পড়ে। এতে যানবাহন চলাচলে চরম দুর্ভোগ নেমে আসে। তবে আগের কাজ নষ্ট হয়ে যাওয়ার ফলে নতুন করে এই ১৭ শ' মিটার সড়ক ফের নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। 

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, চাঁদপুর সড়ক ভবন থেকে চক্ষু হাসপাতাল এবং শহরের ইলিশ চত্বর জুড়ে কাদাপানিতে সড়কটি ডুবে আছে। পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকার কারণে বৃষ্টির পানি পাশের ড্রেন থেকে সড়কে ছড়িয়ে পড়েছে। ফলে গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টির পানিতে ভেঙে পড়েছে নির্মাণাধীন সড়কটি।  

সোমবার সন্ধ্যায় চাঁদপুর সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সুব্রত দত্ত জানান, নষ্ট সড়কের সার্বিক পরিস্থিতি মুল্যায়ণ করে এর সঠিক মান নিয়ন্ত্রনের জন্য বুয়েট থেকে একটি বিশেষজ্ঞ দল চাঁদপুরে আসবেন। একই সাথে সড়ক ও সেতু মন্ত্রনালয়ের একটি মনিটরিং দলও ঢাকা থেকে চাঁদপুরে এসে খুব শীঘ্রই সরেজমিন পদির্শণ করবেন। নির্বাহী প্রকৌশলী আরো জানান, এমন কাজে ঠিকাদার কিংবা সড়ক বিভাগের কেউ দুর্নীতি করার কোন সুযোগ নেই।

এদিকে, গতকাল রবিবার চাঁদপুর জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। তিনি দ্রুত সময়ের মধ্যে এই সড়ক মেরামত করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তাগিদ দেন।

 

 

 



মন্তব্য