kalerkantho


কলেজছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টা ও মারধর

লক্ষ্মীপুরে ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি    

২৩ নভেম্বর, ২০১৭ ১৮:৪০



লক্ষ্মীপুরে ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা

লক্ষ্মীপুর সদরের দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সোহেলসহ তিনজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টা ও মারধর করার ঘটনায় মামলা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে কলেজছাত্রীর মা বাদী হয়ে লক্ষ্মীপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়ের করেন। আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্তের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।
 
মামলায় অন্য আসামিরা হলেন উপজেলার পশ্চিম লক্ষ্মীপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেন আরজু ও জাহাঙ্গীর আলম।
 
আদালত সূত্র জানায়, সদর উপজেলার দালাল বাজারের মহাদেবপুর গ্রামের এক কলেজছাত্রীকে আসা-যাওয়ার পথে ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সোহেল তার সহযোগীদের নিয়ে খারাপ প্রস্তাব দেন। গত মঙ্গলবার বিকেলে ওই ছাত্রী কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে পূর্বপরিকল্পিতভাবে তার মুখ চেপে ধরে পাশের একটি  বাগানে নিয়ে যান। সেখানে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা ও কামড় দিয়ে আহত করা হয়। এ সময় ওই ছাত্রীর চিৎকার শুনে  আশপাশের লোকজন জড়ো হয়। একপর্যায়ে সোহেলের সহযোগী  ইসমাইল হোসেন ও জাহাঙ্গীর আলম সেখানে এসে ছাত্রীকে মারধর করে ভয়-ভীতি দেখায়। পরে ছাত্রীকে সদর হাসপাতালে এনে চিকিৎসা করানো হয়।
 
মামলার বাদী বলেন, "থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ গড়িমসি করেছে। এ জন্য বাধ্য হয়েই নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেছি। এ ঘটনায় আমি সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি। "
 
বাদীর আইনজীবী তছলিম আলম বলেন, "বাদীর অভিযোগ আদালত আমলে নিয়েছেন। বিষয়টি বিচার বিভাগীয় তদন্তের জন্য আদালত নির্দেশ দিয়েছেন। " দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সোহেল বলেন, "একটি ওয়াকফ ট্রাস্টের জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে আমার বিরুদ্ধে এ মিথ্যা  মামলা করা হয়েছে। এটি বানোয়াট ও সাজানো। বিষয়টি আমি আগেও স্থানীয় প্রশাসনকে জানিয়েছি। " 
 

মন্তব্য