kalerkantho


ষড়যন্ত্র চলছে বিড়িশিল্প ধ্বংসের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ নভেম্বর, ২০১৭ ১৬:৩৯



ষড়যন্ত্র চলছে বিড়িশিল্প ধ্বংসের

বাংলাদেশ বিড়িশ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আমিনউদ্দিন বিএসসি বলেছেন, ‘বাংলাদেশ থেকে এর আগেও বিড়িশিল্প ধ্বংসের চক্রান্ত করে পাকিস্থান সরকার ব্যার্থ হয়েছে। ব্রিটিশ কম্পানিগুলোও কম চেষ্টা করেনি।

তবে তাদের কেউই সফল হতে পারেনি। আমি অর্থমন্ত্রীকে বলবো এই আগুনে হাত দেবেন না। আমরা সারাদেশে ১৫ লাখ বিড়ি শ্রমিক রয়েছি। আমাদেরকে রাস্তায় নামতে বাধ্য করবেন না। ’

রবিবার বেলা ১টার দিকে কিশোরগঞ্জের গাইটালবাস স্ট্যান্ডে এক পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এম কে বাঙালি, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক হারিক হোসেন, সদস্য শামীম ইসলাম, কিশোরগঞ্জ বিড়ি ফেডারেশনের সভাপতি মশিউর রহমান প্রমুখ।

আমিনউদ্দিন বিএসসি বলেন, বিড়িশিল্পকে বাঁচাতে যা যা করণীয় আমরা করবো। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী গরীবের কষ্ট বোঝেন। তার কাছে আমাদের দাবি আমরা লাখলাখ মানুষ এই শিল্পের সাথে জড়িত, আপনি আমাদেরকে বাঁচান।

তাছাড়া দেশের উন্নয়নে বিড়িশিল্প যা করেছে কোনো বিদেশি সিগারেট কম্পানি তার ছিটে ফোটাও করেনি। সুতরাং বিড়িশিল্প আমাদের শিল্প, এই শিল্পকে আমাদেরকেই রক্ষা করতে হবে।

একইসাথে তৃতীয় ও শেষ দফায় উত্তরবঙ্গে রোড শো শেষে আগামী ডিসেম্বরে ঢাকায় মহাসমাবেশ করার ঘোষণাও দেন বিড়িশ্রমিক ফেডারেশনের এই নেতা। ‘বাংলাদেশে আর বিড়িশিল্প থাকবে না’ সম্প্রতি অর্থমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের প্রতিবাদে দফায় দফায় দেশব্যাপী বিভিন্ন আন্দোলন করছেন বিড়িশিল্প শ্রমিকরা। এরইঅংশ হিসেবে চলতি মাসের ৫ তারিখ থেকে প্রথম দফায় খুলনা, যশোর, কুষ্টিয়া, পাবনা ও সিরাজগঞ্জে রোড শো ও পথ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

দ্বিতীয় দফায় রোববার কিশোরগঞ্জ জেলা থেকে শুরু হয়েছে এ আন্দোলন। আগামী ২৩ নভেম্বর টাঙ্গাইল জেলা সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হবে। এ পাঁচদিনে রোড শোটি ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, জামালপুরসহ পাঁচ জেলায় পথসভা করবে বলে জানা গেছে।


মন্তব্য