kalerkantho


ঘরের মেঝে খুঁড়ে মিলল বন্ধুর লাশ

পাবনা প্রতিনিধি    

১৮ নভেম্বর, ২০১৭ ১৩:০৩



ঘরের মেঝে খুঁড়ে মিলল বন্ধুর লাশ

সুজানগর উপজেলায় নিখোঁজের দুই মাস পর মিলেছে কলেজছাত্র রবিউল ইসলামের লাশ। বন্ধু মামুন শেখের দেওয়া তথ্য মতে গতকাল শুক্রবার সকালে তার শোবার ঘরের মেঝে খুঁড়ে রবিউলের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এর আগে মামুনসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় : বরাদ্দ আছে, উন্নয়ন নেই

মামুন পুলিশকে জানিয়েছে, প্রেমঘটিত বিষয়ে রবিউলের সঙ্গে তার দ্বন্দ্ব ছিল। এর জেরে রবিউলকে প্রথমে ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে এবং পরে শ্বাসরোধে হত্যা করে সে। পরে ঘরের মেঝে খুঁড়ে লাশ চাপা দিয়ে রাখে। রবিউল একই উপজেলার উলাট গ্রামের আবদুর রাজ্জাকের ছেলে। তিনি সেলিম রেজা হাবিব ডিগ্রি কলেজের বিএ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন।

ভুঁইফোড় চিকিৎসালয়

পুলিশ ও স্বজনরা জানায়, গত ২১ সেপ্টেম্বর সকালে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হন রবিউল। পরদিন এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করে পরিবার। এর মধ্যে দুটি মোবাইল নম্বর থেকে ফোন করে এবং মেসেজ পাঠিয়ে তাদের কাছে রবিউলের মুক্তিপণ হিসেবে ৫০ লাখ টাকা দাবি করা হয়।



‘প্রকৃত ধার্মিক কখনো কোনো ধর্মকে অবমাননা করেন না’

টাকা না পেলে রবিউলকে হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়। এ ঘটনায় রবিউলের বড় ভাই নজরুল ইসলাম হূদয়কে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন।

লক্ষ্মীপুর দারুল উলুম আলিয়া মাদরাসা : নম্বরপত্র তুলতেও টাকা

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস জানান, মামলার পর বিভিন্ন সময় হূদয়সহ চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ ও মোবাইল নম্বর ট্র্যাকিং করে গত বৃহস্পতিবার পাবনা থেকে মামুনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তার দেওয়া তথ্য মতে গতকাল সকালে রবিউলের লাশ উদ্ধার করা হয়।


মন্তব্য