kalerkantho


পুলিশের ওপর হামলা ও আসামি ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

হাতিয়ায় পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতিসহ ৩৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, নোয়াখালী    

১৭ নভেম্বর, ২০১৭ ১৭:৩৭



হাতিয়ায় পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতিসহ ৩৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ায় পুলিশের হাত থেকে আসামি  ছাত্রলীগ নেতাকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় এবং ছয় পুলিশ কর্মকর্তার ওপর হামলার ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে  হাতিয়া থানায় মামলা করেছে পুলিশ। মামলায় হাতিয়া পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাইফুদ্দিন আহম্মেদকে প্রধান আসামি এবং জ্ঞাত ৩৯ জন ও অজ্ঞাত দেড় শ জনকে আসামি করা হয়েছে।

আজ শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত এ হামলার ঘটনায় পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি।

হাতিয়া থানার ওসি  কামরুজ্জামান শিকদার জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে হাতিয়া হাসপাতালে প্রবেশ করে সন্ত্রাসী রাকিবের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী সেখানে চিকিৎসাধীন যুবলীগকর্মী আলতাফ হোসেনকে মারধর ও তার জিনিসপত্র ছিনিয়ে নেয়। খবর পেয়ে রাতে ছদ্মবেশে ছয় পুলিশ কর্মকর্তা রাকিবকে তার বাড়ির সামনে তালুক মার্কেট এলাকা থেকে আটক করে। পরে পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতির নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে ছয় পুলিশ কর্মকর্তাকে আহত করেন। তারা পুলিশের ব্যবহৃত দুটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে আটক রাকিবকে ছিনিয়ে নিয়ে যান। ওই ঘটনায় রাতেই হাতিয়া থানা পুলিশের এসআই  নুরুজ্জামান বাদী হয়ে পুলিশের কর্তব্যকাজে বাধা প্রদান, পুলিশকে মারধর ও আসামি ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ এনে হাতিয়া পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি আ্যডভোকেট সাইফ উদ্দিন আহাম্মদকে ১ নম্বর আসামি করে হামলায় জড়িত ৩৯ জন জ্ঞাত এবং ১৫০ জন অজ্ঞাত ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।

এদিকে, পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় প্রধান আসামি পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি আ্যডভোকেট সাইফ উদ্দিন আহমেদ জানান, তিনি হৃদরোগের রোগী। চিকিৎসকের পরামর্শে চিকিৎসাধীন। হাতিয়া থানার ওসি তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছেন।

ওসি মূলত স্থানীয় সংসদ সদস্য আয়েশা ফেরদৌস ও তার স্বামী দস্যুদের গডফাদার মোহাম্মদ আলীর আজ্ঞাবহ।   তিনিসহ হাতিয়া পুলিশ প্রশাসন তার রাজনৈতিক ভাবমূর্তি নষ্ট করার অপচেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।  


মন্তব্য