kalerkantho


স্ত্রীর গায়ে আগুন দেওয়ার এক সপ্তাহ পর স্বামী গ্রেপ্তার

ফেনী প্রতিনিধি    

২৩ অক্টোবর, ২০১৭ ১৬:১৯



স্ত্রীর গায়ে আগুন দেওয়ার এক সপ্তাহ পর স্বামী গ্রেপ্তার

যৌতুকের জন্য গত চার বছর ধরে নির্যাতন চলছিল জেসমিন আক্তারের ওপর। একপর্যায়ে গত ১৫ অক্টোবর রাতে তার গায়ে কেরোসিন দিয়ে আগুন দেন স্বামী আনোয়ার হোসেন।

মারাত্মক দগ্ধ অবস্থায় জেসমিনকে ভর্তি করা হয় ফেনী সদর হাসপাতালে। আজ সোমবার সকালে পুলিশ আনোয়ারকে গ্রেপ্তার করে জেলে পাঠায়।

পুলিশ ও পরিবার সূত্র জানায়, চার বছর আগে উপজেলার চরসাহাভিকারি গ্রামের মো. ইদ্রিসের মেয়ে জেসমিন আক্তারের বিয়ে হয় চরমজলিশপুর ইউনিয়নের মজলিশপুর গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে আনোয়ার হোসেনের সঙ্গে। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য তাকে নির্যাতন চালানো হতো। ১৫ অক্টোবর রাতে আবারো দুই লাখ টাকার জন্য চাপ দেন আনোয়ার। একপর্যায়ে জেসমিনের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেন আনোয়ার। ঘটনার পর আনোয়ার পালিয়ে যান।

এলাকার লোকজন ও স্বজনরা জেসমিনকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ব্যাপারে জেসমিনের পিতা মো. ইদ্রিস সোনাগাজী থানায় মামলা করলে পুলিশ আজ সোমবার আনোয়ারকে মজলিশপুর থেকে গ্রেপ্তার করে বলে জানান সোনাগাজী থানার ওসি মো. হুমায়ূন কবির।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা, সোনাগাজী থানার এসআই মো. আব্দুল কুদ্দুস জানান, সোমবার দুপুরে আনোয়ারকে ফেনীর বিচার বিভাগীয় হাকিম (সোনাগাজী আদালতে) আদালতে নেওয়া হলে বিচারক তাকে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেন।


মন্তব্য