kalerkantho


গোদাগাড়ীতে শয়নকক্ষ থেকে স্বামী-স্ত্রীর মরদহ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

২৩ অক্টোবর, ২০১৭ ০৫:৩৬



গোদাগাড়ীতে শয়নকক্ষ থেকে স্বামী-স্ত্রীর মরদহ উদ্ধার

প্রতীকী ছবি

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার শেখপাড়া বারমাইল গ্রামের একটি বাড়ি থেকে স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গতকাল রবিবার বিকেলে ওই দম্পতির লাশ উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারনা করছে দু’জনেই আত্মহত্যা করেছেন। আবার স্থানীয় কেউ কেউ দাবি করছেন, স্ত্রী নিপা খাতুনকে (২৫) হত্যার পর স্বামী সনি আহমেদ (২৫) নিজেও আত্মহত্যা করেছেন।  

সনি ওই গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে। নিপার সঙ্গে বছর খানেক বিয়ে হয়েছিল তাঁর। সনি মোবাইল ফোন মেরামতের কাজ করতেন। তাঁর স্ত্রী নিপা উপজেলার ফরাদপুর স্কুলপাড়া গ্রামের আবু বকর সিদ্দিকের মেয়ে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, এর আগেও দুইবার বিয়ে করেছিলেন সনি। তবে সেই দুই স্ত্রীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় তাঁদের দুজনের সঙ্গেই বিচ্ছেদ হয়ে যায় সনির। পরে বছর খানেক আগে নিপাকে বিয়ে করেন সনি।

 

প্রতিবেশীরা জানান, বাবা-মায়ের একমাত্র ছেলে সনি। তাঁদের সঙ্গেই বাড়িতে স্ত্রীকে নিয়ে তিনি থাকতেন। তবে সনির মায়ের সঙ্গে ছেলের বউ নিপার প্রায়ই ঝগড়া হতো। শনিবার রাতেও তাঁদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হয়। পরে নিপার শ্বাশুড়ি রাগ করে তাঁর বাবার বাড়ি চলে যান। এরপর কৃষিকাজের জন্য মাঠে চলে যান নিপার শ্বশুর শহিদুল ইসলাম। এরই মধ্যে বিকেলে নিপার বাড়িতে তাঁর খালা বেড়াতে এসে তাঁদের শয়নকক্ষে স্বামী-স্ত্রীর লাশ দেখতে পান তিনি। এরপর বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয়রা থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে দু’জনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠায়।  

গোদাগাড়ী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিপজুর আলম মুন্সি জানান, নিপার মরদেহ ঘরের মেঝেতে পড়েছিল। আর ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় সনির মরদেহ ঝুলছিল ঘরের তীরের সঙ্গে। নিপার গলাতেও ফাঁসের চিহ্ন রয়েছে। তাই ধারণা করা হচ্ছে, নিপা প্রথমে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। পরে তার মরদেহ নামিয়ে সনি নিজেও আত্মহত্যা করেন। তাঁদের শরীরের অন্য কোথাও আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এ অবস্থায় ধারণা করা হচ্ছে, দু’জনেই আত্মহত্যা করেছে। তবে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলেই বিষয়টি পরিস্কার হওয়া যাবে।  
 
তবে স্থানীয়রা দাবি করেছেন, মায়ের সঙ্গে ঝগড়া করার কারণে স্ত্রী নিপাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর নিজেও আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে পারেন সনি।  


মন্তব্য