kalerkantho


ভোলার চরফ্যাশনে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ২০

ভোলা প্রতিনিধি   

১৮ অক্টোবর, ২০১৭ ১৪:১৯



ভোলার চরফ্যাশনে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ২০

কথা ছিল ভোলার চরফ্যাশনের নিজ বাড়ি থেকে ইলিশা ইউনিয়নের মেয়ের জামাই বাড়ি বেড়াতে যাবেন শাশুড়ি আমেনা বেগম। আর সে উদ্দেশেই আজ বুধবার খুব সকালে আমেনা তার স্বামী শাহজাহান রাঢ়ি, মেয়ে সুফিয়া বেগম, জামাই রাজিব ও নাতনী ইমাকে নিয়ে ভোলার সর্ব দক্ষিণের উপজেলা চরফ্যাশন উপজেলার মাদ্রাজ ইউনিয়নের কেরামগঞ্জ গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে চরফ্যাশন সদরে অসেন।

চরফ্যাশন বাসষ্ট্যান্ড থেকে ভোলাগামী যাত্রীবাহী বাস মুসাফির এক্সপ্রেসে (বাখরগঞ্জ ব-৭২) চড়েন। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাসের কারণে শেষ পর্যন্ত মেয়ের জামাই বাড়িতে বেড়াতে যাওয়া হলো না শাশুড়ি আমেনার। দক্ষিণ আইচা থেকে ভোলাগামী যাত্রীবাহী ওই বাসটি আজ সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ভোলা-চরফ্যাশন সড়কের দৌলতখান উপজেলার পশ্চিম জয়নগর এলাকায় আসলে বাসের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশের একটি পুকুরে পড়ে যায়। এতে আমেনা বেগম ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরিবারের অন্য সদস্যরা আহত হন। এ ঘটনায় আরো অন্তত ২০ যাত্রী আহত হন। গুরুতর আহতদের মধ্যে ১৬ জনকে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  

আজ বুধবার সকালে সরেজমিনে ভোলা সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, নিহত আমেনার নিথর দেহ পড়ে রয়েছে হাসপাতালের মেঝেতেই। আর অর্থপেডিকস বিভাগের বিছানায় গুরুতর আহত অবস্থায় শুয়ে রয়েছেন আমেনার স্বামী শাহজাহান রাঢ়ি।

তার শরীরে স্যালাইন পুশ করে রেখেছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক ও নার্সরা। অসুস্থ বাবার পাশে বসে রয়েছেন দুর্ঘটনায় আহত অন্ত:স্বত্বা মেয়ে সুফিয়া। অপর আহত জামাই রাজিব ৮ বছরের শিশু আহত ইমার দেখাশোনা করছেন। এ সময় হাসপাতালে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারনা হয়।  

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত শাহজাহান রাঢ়ি কান্নাজড়িত কণ্ঠে জানান, তার বাড়ি চরফ্যাশন উপজেলার মাদ্রাজ ইউনিয়নের কেরামগঞ্জ গ্রামে। মেয়ে জামাই বাড়ি বেড়াতে যাওয়ার উদ্দেশে তার স্ত্রী আমেনাসহ মেয়ে সুফিয়া বেগম, জামাই রাজিব ও নাতনী ইমাকে নিয়ে চরফ্যাশন বাসষ্ট্যান্ড থেকে ভোলাগামী যাত্রীবাহী বাস মুসাফির এক্সপ্রেসে ওঠেন। দ্রুতগামী যাত্রীবাহী বাসটি সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ভোলা-চরফ্যাশন সড়কের দৌলতখান উপজেলার উত্তর জয়নগর এলাকায় আসলে বাসের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনাকবলিত হয়। এতে স্ত্রী আমেনা বেগম ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরিবারের অন্য সদস্যরা আহত হন।

এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে দৌলতখান থানার ওসি এনায়েত হোসেন জানান, পরে দৌলতখান থানা ও ভোলা সদর মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত আমেনার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। আহতদের ভোলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।  

তিনি আরো জানান, এ ব্যাপারে দৌলতখান থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। দুর্ঘটনাকবলিত বাসটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।


মন্তব্য