kalerkantho


শেরপুরে আন্তঃকলেজ আদিবাসী বিতর্ক প্রতিযোগিতা

শেরপুর প্রতিনিধি    

১৬ অক্টোবর, ২০১৭ ১৯:০০



শেরপুরে আন্তঃকলেজ আদিবাসী বিতর্ক প্রতিযোগিতা

'নিজস্ব সংস্কৃতির বুননে রচি সাম্যের ইতিহাস'- এ স্লোগানকে সামনে রেখে শেরপুরে আন্তঃকলেজ আদিবাসী বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ সোমবার শহরের ডা. সেকান্দর আলী কলেজ মিলনায়তনে সংসদীয় ধারার এ বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে নাগরিক সংগঠন জনউদ্যোগ।

বাংলাদেশ ডিবেটিটিং ফেডারেশন-বিডিএফ এবং শেরপুর ডিস্ট্রিক্ট ডিবেটিং ফেডারেশন (এসডিডিএফ) এতে কারিগরি সহায়তা প্রদান করে। এ বিতর্ক প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে আদিবাসীদের সাংবিধানিক স্বীকৃতি ও সমতলের আদিবাসীদের জন্য পৃথক মন্ত্রণালয়ের দাবি  উত্থাপিত হয়। একইসঙ্গে পাহাড়ের মতো সমতলের আদিবাসীদের জন্যও পৃথক ভূমি কমিশন গঠনের প্রস্তাব করা হয়। প্রতিযোগিতায় স্থানীয় আদিবাসী শিক্ষার্থীদের একটি দলসহ তিনটি কলেজের ছয়টি দল অংশগ্রহণ করে। বিকেলে ফাইনালে 'নিজেদের মধ্যেকার সমঝোতাহীনতাই আদিবাসীদের অধিকার রক্ষার অন্তরায়' শীর্ষক প্রস্তাবের পক্ষে সরকারি দল হিসেবে শেরপুর সরকারি কলেজ ডিবেটিং ক্লাব চ্যাম্পিয়ন ও বিরোধীদলে থাকা আদিবাসী বিতর্ক দল রানারআপ হয়।

সেরা বিতার্কিক নির্বাচিত হন শেরপুর সরকারি কলেজ ডিবেটিং ক্লাবের দলনেতা (প্রধানমন্ত্রী) মো. রেজওয়ানুল ইসলাম। পরে অতিথিরা  চ্যাম্পিয়ন, রানারআপ ও সেরা বিতার্কিকের হাতে পুরস্কারের ক্রেস্ট এবং অংশগ্রহণকারী সকল বিতার্কিককে উপহারের বই তুলে দেন। প্রতিযোগিতা উদ্বোধন ও সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডা. সেকান্দর আলী কলেজের কলেজ অধ্যক্ষ শহীদুল ইসলাম মুকুল।

বক্তব্য দেন প্রধান অতিথি শেরপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ড. এ.কে.এম রিয়াজুল হাসান, জনউদ্যোগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব তারিক মিঠুল, অধ্যাপক শিব শংকর কারুয়া, জেলা জনউদ্যোগ আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ, সাংবাদিক হাকিম বাবুল প্রমুখ।

বিডিএফ কেন্দ্রীয় কমিটির বিতর্কবিষয়ক সম্পাদক আক্তার হোসেন প্রতিযোগিতায় স্পিকার এবং এসডিডিএফ সম্পাদক এস এম ইমতিয়াজ চৌধুরী শৈবাল, বরকত উল্লাহ এবং বিতার্কিক এমদাদুল হক রিপন ডেপুটি স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন।  


মন্তব্য