kalerkantho


পদ্মা নদীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

ফরিদপুরে ১৬০ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ, ৩০ জেলের কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ১৩:৩৮



ফরিদপুরে ১৬০ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ, ৩০ জেলের কারাদণ্ড

মা ইলিশ ধরা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করার দায়ে ফরিদপুরের তিন উপজেলায় ৩০ জেলের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় ১৬০ কেজি ইলিশ মাছ ও ৯৩ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়।

পরে ইলিশ মাছগুলো এতিমখানায় দেওয়া হয়। আর জব্দকৃত কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ফেলা হয়। ফরিদপুর জেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিদপ্তরের উদ্যোগে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ও আজ শুক্রবার সকালে পদ্মা নদীতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করে।  

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে আজ শুক্রবার সবাল ১০টা পর্যন্ত  ফরিদপুর জেলার সদরপুর উপজেলার  চর নাসিরপুর, মুন্সিরচর ও চরভদ্রাসন উপজেলার আকটের চর, চর হাজার বিঘা এবং সদর উপজেলার ডিক্রিরচর ও নর্থচ্যানেল ইউপির পদ্মার নদীর বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় জেলেদের বিভিন্ন  ট্রলার থেকে ১৬০ কেজি ইলিশ ও ৯৩ হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল জব্দ করা হয় এবং  মোট ৩০ জনকে আটক করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।   

চরভদ্রাসনে আদালত পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সজল চন্দ্র শীল জানান, সরকারি আদেশ অমান্য করায় আটক ১৩ জেলেকে ১৮৬০ সালের দণ্ডবিধির ১৮৮ ধারায় ১০ দিনের বিনাশ্রম সাজা প্রদান করা হয়।  

তিনি বলেন, জব্দকৃত কারেন্ট জাল সবার সম্মুখে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয় এবং ইলিশ মাছ চরভদ্রাসন উপজেলার বিভিন্ন এতিমখানায় বন্টন করে দেওয়া হয়।  

ফরিদপুর সদর উপজেলায় অভিযানকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুকুল কুমার মৈত্র বলেন, অভিযানে ৮ জেলেকে ১০ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।  

এ ছাড়া সদরপুর উপজেলায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাসান মো. হাফিজুর রহমান ৯ জেলেকে ১০ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন।

একইসঙ্গে উদ্বারকৃত কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ফেলা হয়।


মন্তব্য