kalerkantho


শেরপুরে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ

শেরপুর প্রতিনিধি    

৭ অক্টোবর, ২০১৭ ০৫:২৬



শেরপুরে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ

প্রতীকী ছবি

শেরপুরে তৃতীয় শ্রেণী পড়ুয়া এগারো বছর বয়সী এক শিশু কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার বিকালে (৬ অক্টোবর) সদর উপজেলার চরশেরপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর দশকাহনীয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পর ওই শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়লে রাতেই তাকে জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ধর্ষণের পর পরই প্রতিবেশী দু্ই সন্তানের জনক ধর্ষক জসিম উদ্দিন এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে। এ ঘটনায় রাতে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।  

ওই শিক্ষার্থীর মা জানান, শুক্রবার বিকালে স্থানীয় বাজার থেকে কলা-বিস্কুট, শুটকি মাছ কিনে বাড়ি ফিরছিল শিশুকন্যাটি। এসময় প্রতিবেশী লম্পট জসিম উদ্দিন তাকে পেছন থেকে ধাওয়া করে জোরপূর্বক পার্শ্ববর্তী একটি ধান ক্ষেতে নিয়ে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়।  

পরে অচেতন অবস্থায় ওই শিক্ষার্থীকে ধান ক্ষেতে পড়ে থাকতে দেখে অন্য এক প্রতিবেশী তাকে বাড়ি নিয়ে আসে। অবস্থার অবনতি হতে থাকলে রাতে তাকে জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি বলেন, জসিম আমার মেয়ের মান ইজ্জত মেরেছে। আমি ওর বিচার চাই।

সরকারের কাছে উফুযুক্ত (উপযুক্ত) বিচার চাই।  

জেলা হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. অরূপ সাহা জানান, ধর্ষণের ফলে শিশুটির যৌনাঙ্গে জখম হয়েছে। তাকে ভর্তির পর চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। মেডিক্যাল বোর্ড করে তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে।  

শেরপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আমিনুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, ধর্ষণের ঘটনাটি শুনার পর পরই ওই লম্পটকে আটক করতে পুলিশী অভিযানে নেমেছে। এ ঘটনায় সদর থানায় একটি মামলা রেকর্ড করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।   


মন্তব্য