kalerkantho


সাভার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোর রুমে আনসার সদস্যের ঝুলন্ত লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৮:৪১



সাভার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোর রুমে আনসার সদস্যের ঝুলন্ত লাশ

প্রতীকী ছবি

সাভার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের একটি স্টোর থেকে নৈশ প্রহরী এক আনসার সদস্যের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ রবিবার সকালে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের স্টোর রুম থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত সিরাজুল ইসলাম (২৪) সিরাজগঞ্জ জেলার চৌহালী থানার চড়ছালিমাবাদ গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে। তিনি সাভার পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ে নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন। তিনি স্ত্রী-সন্তান নিয়ে সাভারের ভাগলপুর এলাকায় জনৈক জাহিদুর রহমানের বাসায় একটি কক্ষ নিয়ে ভাড়ায় বসবাস করতেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিন বলেন, সিরাজুল ইসলাম ও সায়েদ মিয়া নামে দুই আনসার সদস্য দীর্ঘদিন ধরে হাসপাতালে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। সম্প্রতি সাইদ ছুটিতে গেলে শনিবার রাতে সিরাজুল একাই দায়িত্বে ছিলেন। রবিবার ভোরে হাসপাতালের কর্মীরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নৈশ প্রহরী আনসার সদস্য সিরাজুলকে আশেপাশে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি করে। এক পর্যায়ে হাসপাতালের স্টোর রুমের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ দেখে তাঁকে ডাকাডাকি করা হলেও তাঁর কোনো সাড়া মিলেনি। পরে কোনো সাড়া শব্দ না পাওয়ায় সন্দেহ হলে থানায় খবর দেয়া হয়। পুলিশ গিয়ে দরজা ভেঙে ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় সিরাজুলের মরদেহ উদ্ধার করে।

সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মহসিনুল কাদির বলেন, প্রাথমিকভাবে ঘটনাটি আত্মহত্যা বলেই ধারণা করা হচ্ছে। পারিবারিক কলহের জের ধরে সিরাজুল আত্মহত্যা করতে পারে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

তবে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্পনা কর্মকর্তা ডা.আমজাদুল হক বলেন, কি কারণে ওই আনসার সদস্য আত্মহত্যা করেছে তা তাঁদের জানা নেই।

সাভার উপজেলা আনসার অফিস সূত্রে জানা যায়, নিহত রিয়াজুল গত আট মাস আগে আনসার বাহিনীতে যোগ দেন।


মন্তব্য