kalerkantho


মাগুরায় নবদুর্গা পূজা শুরু

মাগুরা প্রতিনিধি    

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৬:৪১



মাগুরায় নবদুর্গা পূজা শুরু

মাগুরা সদর উপজেলার আলোকদিয়া-পুখরিয়া গ্রামে পুখরেশ্বরী মন্দিরে আজ বৃহস্পতিবার শুরু হয়েছে নবদুর্গা পূজা। এ উপলক্ষে গত তিন বছর ধরে তারা ৯ দিনের আনুষ্ঠানিকতায় ব্যতিক্রম এ পূজা পালন করে আসছে।

সারা দেশে ষষ্ঠীর মাধ্যমে দুর্গা পূজা শুরু হওয়ার প্রচলন থাকলেও এ বাড়ির মন্দিরে পরিবারের পক্ষ থেকে মহালয়ার পরদিন থেকেই শুরু হয় দুর্গা পূজার উৎসব।

শৈলপুত্রী, ব্রহ্মচারিনী, চন্দ্রঘণ্টা, কুষ্মাণ্ডা, স্কন্দ মাতা, কাত্যায়নী, কালরাত্রী, মহাগৌরী এবং সিদ্ধিদাত্রী- দেবী দুর্গার এই ৯টি রূপের আবির্ভাবকে লক্ষ্য করেই 'দে' বাড়ির পক্ষ থেকে ৯ দিনব্যাপী এ পূজার আয়োজন করা হয়। ৯টি রূপে দেবী দুর্গার আবির্ভাবকে সামনে রেখে তারা এ পূজার নাম দিয়েছে নবদুর্গা পূজা।

এ উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে মন্দির প্রাঙ্গণে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নবদুর্গা পূজার মূল উদ্যোক্তা আনন্দ গোপাল দে দাবি করেন, "আমাদের দেশে ষষ্ঠীর মাধ্যমে দুর্গা পূজা শুরু হয়। কিন্তু চণ্ডি  মতে দুর্গা দেবীকে মহালয়ার মাধ্যমে আহ্বানের পরদিন থেকেই এ পূজা শুরু হওয়া উচিত। যেহেতু চণ্ডি শাস্ত্রে দেবী দুর্গা ৯টি রূপে আবির্ভূত হওয়ার কথা রয়েছে। এ কারণে দুর্গা পূজা ৯ দিন ধরেই হওয়া উচিত, যা মহালয়ের পরদিন থেকে শুরু হয়ে নবমীর পরদিন দশমী বিসর্জনের মাধ্যমে শেষ হবে।

সংবাদ সম্মেলনে জেলায় কর্মরত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন  মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার হাজরাতলা শংকর বেদান্ত মঠের পুরোহিত স্বামী বিবেকানন্দ স্বরসতী।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রদীপ কুমার দে, প্রণব কুমার দে, প্রবীর কুমার দে, প্রশান্ত কুমার, পল্লব কুমার দে প্রমুখ।


মন্তব্য