kalerkantho


দুই লঞ্চের সন্ধান মেলেনি

পদ্মায় তিন লঞ্চডুবির ঘটনায় আরও দুই মৃতদেহ উদ্ধার

শরীয়তপুর প্রতিনিধি    

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২২:২৪



পদ্মায় তিন লঞ্চডুবির ঘটনায় আরও দুই মৃতদেহ উদ্ধার

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় তিন লঞ্চডুবির ঘটনায় আজ বুধবার সন্ধ্যায় এক নারীসহ দুইজনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এমভি মৌচাকের সন্ধান পেলেও তা ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে কাঁচিকাটার সন্নিকটে পদ্মার গভীরে  ৪০-৪৫ ফুট পানির নিচে থাকায় তা উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে না।

ডুবে যাওয়া অপর দুই লঞ্চ এমভি নড়িয়া ২ ও মহানগরীর গত তিন  দিনেও সন্ধান মেলেনি।

এদিকে উদ্ধার কাজের ধীরগতির জন্য অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন  নিখোঁজদের স্বজনরা। তবে উদ্ধারকারী দল বলছে, যথাযথভাবে তারা উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। পদ্মার প্রবল স্রোতে ব্যাহত হচ্ছে উদ্ধার কাজ।

ফরিদপুর অঞ্চলের ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক এ বি এম মমতাজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, "আমরা যৌথভাবে খুলনা থেকে আসা নৌবাহিনীর ডুবুরিদল, ফায়ার সার্ভিসের  কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বিআইডাব্লিউটিএ'র লোকজন সম্মিলিতভাবে উদ্ধার কাজ চালাচ্ছি। এ পর্যন্ত দুইটি মৃতদেহ উদ্ধার করেছি। পারভীন নামের এক নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করে তার পরিচয় শনাক্ত করে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছি। অপর এক পুরুষের (৪৫) লাশ এখনও শনাক্ত করা যায়নি। নদীতে তীব্র স্রোত থাকায় উদ্ধার কাজ ব্যাহত হচ্ছে।

তবে যতক্ষণ পযর্ন্ত সম্পূর্ণ উদ্ধার কাজ শেষ না হবে ততদিন পর্যন্ত উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাবেন বলে জানান তিনি।

উদ্ধারকারী দল ও স্থানীয় সূত্র জানায়, নড়িয়া উপজেলার সুরেশ্বর পয়েন্ট এলাকার পদ্মা নদী থেকে  প্রসূতি পারভীন বেগমের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে উদ্ধারকারী দল। বুধবার দুপুরে পদ্মা নদীতে স্থানীয়রা একটি মৃতদেহ ভাসতে দেখে উদ্ধারকারী দলকে খবর দিলে তারা তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহটি উদ্ধার করে। উদ্ধার হওয়া নারীর মৃতদেহটি স্থানীয় ও স্বজনরা পারভীন বেগমের বলে শনাক্ত করেন। এরপর জেলা প্রশাসকের উপস্থিতিতে মৃতদেহটি স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এরপর  বিকেল সাড়ে ৪টায় পদ্মা নদী থেকে একটি মৃতদেহ উদ্ধার করেছে উদ্ধারকারীদল। তবে তার পরিচয় এখনও শনাক্ত করা যায়নি।

এদিকে, খুলনা থেকে আসা নৌবাহিনীর ডুবুরিদল, ফায়ার সার্ভিসের  কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বিআইডাব্লিউটিএ'র লোকজন সম্মিলিতভাবে উদ্ধার কাজ চালাচ্ছেন। ডুবে থাকা লঞ্চ এমভি মৌচাকের সন্ধান পেলেও ৪০-৪৫ ফুট পানির নিচে থাকায় তা আপাতত উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে এটা চিহ্নিত করে রাখা হয়েছে বলে জানান উদ্ধারকারীরা। অন্য দুইটি লঞ্চ এমভি নড়িয়া ২ ও মহানগরীর সন্ধান ও উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। তবে পদ্মায় তীব্র স্রোত থাকায় উদ্ধার কাজ ব্যাহত হচ্ছে বলে জানান উদ্ধারকারী দলের কর্মকর্তারা।

অপরদিকে, নিখোঁজদের লাশের অপেক্ষায় নড়িয়ার সুরেশ্বর পদ্মাপাড়ে স্বজনদের এখনও ভিড় জমে আছে। লাশের অপেক্ষায় আহাজারি করছেন  তারা। নিখোঁজদের ছবি বুকে নিয়ে আহাজারি করছেন স্বজনরা। লঞ্চডুবির খবর পেয়ে সোমবার সকাল থেকেই তারা লাশের অপেক্ষায় অবস্থান করছেন সুরেশ্বরের পদ্মাপাড়ে। অপরদিকে, ডুবে যাওয়া লঞ্চ ও নিখোঁজদের উদ্ধারকাজ ধীরগতিতে চলছে বলে অভিযোগ করেছেন  নিখোঁজদের স্বজনরা।

লঞ্চে নিখোঁজ যাত্রী বিঝারী গ্রামের স্বজল তালুকদারের ছবি বুকে নিয়ে পদ্মাপাড়ে এসে তার লাশ খুঁজে বেড়াচ্ছেন স্বজনরা। ডুবে যাওয়া লঞ্চের কর্মচারী নিখোঁজ নড়িয়া উপজেলার হালইসার গ্রামের মানিক মাদবরের ছবি নিয়ে লাশের অপেক্ষায় পদ্মাপাড়ে তিন দিন ধরে আহাজারি করছেন তার স্ত্রী ছালমা বেগম। তিনি বলেন, "আমি আমার স্বামীর লাশ নিয়ে বাড়িতে যাব। যে কোনও মূল্যে আমি আমার স্বামীর লাশ পেতে চাই। " 


মন্তব্য