kalerkantho


শিবির সন্দেহে ইবি শিক্ষার্থীসহ চারজনকে পুলিশে দিল ছাত্রলীগ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২২ আগস্ট, ২০১৭ ২২:২১



শিবির সন্দেহে ইবি শিক্ষার্থীসহ চারজনকে পুলিশে দিল ছাত্রলীগ

শিবির সন্দেহে ইসলামী বিশ্বদ্যিালয়ের এক শিক্ষার্থীসহ চারজনকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ কর্মীরা। আজ মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ছাত্রলীগের দলীয় সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের আল-ফিকহ বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী রেদওয়ানসহ বহিরাগত তিনজন একটি ব্যাগ নিয়ে ক্যাম্পাসে ঘোরাফেরা করে। তাদের চলাফেরা ও কর্মকাণ্ডে ছাত্রলীগ কর্মীদের মাঝে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। পরে তাদেরকে খুঁজে বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনেরে কাছে পায় ছাত্রলীগ কর্মীরা। বহিরাগতদের কাছে পাওয়া বইগুলো শিবির সংশ্লিষ্ট বলে সন্দেহ করে ছাত্রলীগ কর্মীরা। ছাত্রলীগ কর্মীরা তাদেরকে মিলনায়তনের ১১৬ নং কক্ষে আটক রেখে গণধোলাই দেয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান ঘটনাস্থলে এসে তাদেরকে উদ্ধার করে এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। তাদের কাছ থেকে মোট ৮টি জিহাদী বই এবং ৪টি অতিরিক্ত সিম উদ্ধার করেছে পুলিশ।

জানা যায়, আটককৃত বহিরাগতরা হচ্ছে আবু ইসহাক, আবু সাঈদ এবং সামছুদ্দিন। এদের মধ্য রেদওয়ান, সামছুদ্দিন এবং আবু সাঈদের বাড়ি চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবনগরন উপজেলায়।

এছাড়া আবু এসহাকের বাড়ি ঝিনাইদহ জেলার বিষয়খালী। তবে আটককৃত সবাই চুয়াডাঙ্গা বদরগঞ্জ কামিল মাদ্রাসা থেকে আলিম পাশ করেছে জানা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান বলেন, আমরা ক্যাম্পাসকে শিবিরমুক্ত করেছি তবে তাদের গোপন কার্যক্রম এখনো থেমে নেই। তাদের কাছে জিহাদী বই পাওয়া গেছে। ছাত্রলীগ কর্মীরা তাদেরকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দিয়েছে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রতন শেখ বলেন, 'ছাত্রলীগ তথ্য অনুযায়ী আমরা ছেলেগুলোকে আটক করেছি। তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। '


মন্তব্য