kalerkantho


ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আইন ও সালিস কেন্দ্রের প্রতিনিধি দল

বরগুনায় শিক্ষিকা ধর্ষণ মামলার এক আসামির আত্মসমর্পণ

বরগুনার প্রতিনিধি   

২১ আগস্ট, ২০১৭ ২২:৪৯



বরগুনায় শিক্ষিকা ধর্ষণ মামলার এক আসামির আত্মসমর্পণ

বরগুনার বেতাগীতে শিক্ষিকা ধর্ষণে ঘটনার এজহারভুক্ত আসামি মো. জুয়েল আত্মসমর্পণ করেছে। সোমবার দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে জুয়েল আত্মসমর্পণের জন্য বেতাগীর হোসনাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. মাকসুদুর রহমান ফোরকানের কাছে আসেন।

পরে ইউপি চেয়ারম্যান ফোরকান তাকে পুলিশে সোপর্দ করেন।

জুয়েল বেতাগী উপজেলার হোসনাবাদ ইউনিয়নের কদমতলা গ্রামের মো. আবদুর রহমানের ছেলে ও এই মামলার তিন নম্বর আসামি।

এ বিষয়ে বরগুনার পুলিশ সুপার বিজয় বসাক বলেন, জুয়েলকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে ওই শিক্ষিকাকে নির্যাতনের স্থান পরিদর্শন করেছেন আইন ও সালিস কেন্দ্রের তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল। সোমবার দুপুরে আইন ও সালিম কেন্দ্রের সমন্বয়ক আবু আহমেদ ফয়জুল করীরের নেতৃত্বে অ্যাডভোকেট আসমা খানম এবং অ্যাডভোকেট তাসনীম দীমা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এ সময় তাঁরা স্থানীয়দের কাছ থেকে ঘটনার বিষয় জানার পাশাপাশি ভুক্তভোগী ওই শিক্ষিকাকে আইনি সহায়তা দেয়ার আশ্বাস দেন।

এদিকে সোমবার দুপুরে পর নির্যাতনের শিকার ওই শিক্ষিকা অসুস্থ হয়ে পড়লে পুলিশের একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিত্সার জন্য নিয়ে যায় পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে এই রিপোর্ট লেখার সময় ওই শিক্ষিকাকে বহন করা অ্যাম্বুলেন্সটি বরিশালের দিকে যাচ্ছিল।

এ বিষয়ে বরগুনার পুলিশ সুপার বিজয় বসাক পিপিএম জানান, নির্যাতির ওই শিক্ষিকা অসুস্থ হওয়ার পর বরিশাল যাওয়ার জন্য পুলিশের সহযোগিতা চেয়েছিলেন।

তাই তার নিরাপত্তার জন্য পুলিশের অ্যাম্বুলেন্সে করে পুলিশ প্রহরায় তাকে বরিশালে পাঠানো হয়েছে।


মন্তব্য