kalerkantho


'প্রধান বিচারপতি সংবিধান ও সংসদকে অবজ্ঞা করেছেন'

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২০ আগস্ট, ২০১৭ ১৯:৪৯



'প্রধান বিচারপতি সংবিধান ও সংসদকে অবজ্ঞা করেছেন'

ছবি : কালের কণ্ঠ

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের মাধ্যমে প্রধান বিচারপতি সংবিধান এবং সংসদকে অবজ্ঞা করেছেন। মাননীয় প্রধান বিচারপতি আপনি রায় দেয়ার সময় ১৯৫৪ সালে ভারতের বিচারপতি বিধান ঘোষের উদ্ধৃতির আদলে আপনার বিচারকার্য শুরু করেছেন।

তিনি বলেছিলেন ‘উচ্চতর আদালত হলো ফ্লেমিং শোউড’। ‘ফ্লেমিং শোউড’ উচ্চতর আদালতকে রক্ষা করার জন্য বিচার বিভাগ তার নিয়ম মাফিক দায়িত্ব পালন করে থাকেন। আমরাও সেটাই চাই যে, পবিত্র সংবিধানকে রক্ষা করার জন্য সকল দায়িত্ব পালন করবেন বিচার ব্যবস্থা।  

কিন্তু বিচারপতি এই শাণিত তরবারি দিয়ে আপনি বিচার ব্যবস্থার মীমাংসিত বিষয়গুলোকে নিধন করে বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন এবং এ দেশের সংবিধানের উপর আঘাত হেনেছেন। আপনি সংসদকে কঠাক্ষ করেছেন, আপনি বলেছেন সংসদ সদস্যরা অযোগ্য, অপরিপক্ক। কিন্তু আপনি ভুলে গেছেন যে এই সংসদ হচ্ছে জনগণের নির্বাচিত সংসদ।  

আর এই সংসদ সদস্যদের নির্বাচিত হচ্ছেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি। সুতরাং সংসদ সদস্য যদি অপরিপক্ক, অযোগ্য হয় তাহলে মহামান্য রাষ্ট্রপতিও অযোগ্য? আর মহামান্য রাষ্ট্রপতির নিয়োগকৃত হচ্ছেন আপনি, তাহলে আপনিও অযোগ্য ও অপরিপক্ক হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করছেন। আজ রবিবার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. রাশিদ আসকারীর সভাপতিত্বে এবং বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. সাইদুর রহমান ও আইন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আরমিন খাতুনের যৌথ উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঝিরাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য মো. আবদুল হাই, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা প্রমুখ।  


মন্তব্য