kalerkantho


চবি ছাত্র হত্যা মামলায় চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ আগস্ট, ২০১৭ ২০:৫০



চবি ছাত্র হত্যা মামলায় চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

মো. আলাউদ্দিন

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মো. আলাউদ্দিন হত্যা মামলায় আজ বৃহস্পতিবার এক নারীসহ চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশ। আজ চট্টগ্রাম আদালতে অভিযোগপত্রটি জমা দেওয়া হয়।

আসামিরা হলেন- ইয়াসমিন আক্তার, তাঁর স্বামী ইকবাল হোসেন, ইকবালের সৎ ভাই মো. তৈয়ব ও মো. হেলাল।

এ বছরের ২২ মার্চ বিকেলে চট্টগ্রাম নগরের বায়েজীদ বোস্তামী থানার পশ্চিম শহীদনগর এলাকায় ভাড়া নেওয়ার কথা বলে একটি বাসায় ঢোকেন এক নারীসহ চারজন। বাসা পছন্দ হয়েছে বলে তাঁরা বাড়ির তত্ত্বাবধায়ককে জানান। এতে রাজি হন তত্ত্বাবধায়ক। এর তিন ঘণ্টার মধ্যে একে একে বাসা থেকে বের হয়ে যান নারীসহ তিনজন। চতুর্থজনের (আলাউদ্দিন) লাশ পাওয়া যায় বাসার টয়লেটে হাত-পা বাঁধা অবস্থায়। নিহত আলাউদ্দিন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ছাত্র। এ ঘটনায় আলাউদ্দিনের বাবা শাহ আলম বাদী হয়ে ২৩ মার্চ রাতে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে বায়েজীদ বোস্তামী থানায় হত্যা মামলা করেন।

বায়েজীদ বোস্তামী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. শামীম শেখ মামলার তদন্ত করেন।

আজ বৃহস্পতিবার আদালতে জমা দেওয়া অভিযোগপত্রে তদন্ত কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, নিহত আলাউদ্দিনের কাছে ইয়াসমিন প্রাইভেট পড়তেন। এ সুবাদে দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক হয়। আরেকজনের সঙ্গে বিয়ের পর ঘটনাটি জানাজানি হলে বিবাহবিচ্ছেদের ঘটনা ঘটে। গত বছরের জুলাই মাসে ইকবালের সঙ্গে তাঁর দ্বিতীয় বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে আলাউদ্দিন তাঁকে উত্ত্যক্ত করতে শুরু করেন। বিষয়টি স্বামী ইকবালকে জানানো হলে পরিকল্পনা করে খুন করা হয় আলাউদ্দিনকে।

তদন্ত কর্মকর্তা বলেন, গ্রেপ্তার চার আসামি কারাগারে আছেন। তাদের গত ২৮ মার্চ গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর আসামিরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এবং আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে আলাউদ্দিনকে খুন করার কথা স্বীকার করেন। মূলত আলাউদ্দিন ইয়াসমিনকে উত্ত্যক্ত করতেন। এই কারণে পরিকল্পিতভাবে তাঁকে খুন করা হয়।

নিহত শিক্ষার্থীর বাবা ও মামলার বাদী মো. শাহ আলম আসামিদের শাস্তি দাবি করে বলেন, আর কারো ছেলের যেন এভাবে মৃত্যু না হয়।


মন্তব্য