kalerkantho


আদালতে ধৃত ইলিয়াসের স্বীকারোক্তি

জেলে নিয়োগ নিশ্চিত না করায় খুন হলেন নৌকার মাঝি জাফর

টেকনাফ প্রতিনিধি   

১৪ আগস্ট, ২০১৭ ০০:২৫



জেলে নিয়োগ নিশ্চিত না করায় খুন হলেন নৌকার মাঝি জাফর

মাছ ধরার নৌকায় জেলে হিসাবে নিয়োগ নিশ্চিত না করাতে খুন হলেন টেকনাফ শাহপরীর দ্বীপের বোট মাঝি জাফর আলম। এরা নিশ্চয়তা হিসেবে জনপ্রতি ২ হাজার টাকা অগ্রিম দাবি বরে আসছিলো। মাঝি জাফর আলম তাদের দাবিকৃত টাকা প্রদানে কালক্ষেপণ করায় সে সহ আরো ৫/৬ জন মিলে তাকে হত্যা করে। গত ১২ আগস্ট শনিবার কক্সবাজার বিচারিক আদালত (টেকনাফ) ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না খানমের উপস্থিতিতে ১৬৪ ধারা কাযবিধির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এ তথ্য দেন মামলার অন্যতম আসামি মো. ইলিয়াছ।

তাকে (মো. ইলিয়াছ) গত ১১ আগস্ট চট্রগ্রাম পতেঙ্গা ফুলছড়ি এলাকা থেকে আটক করে আদালতে সোর্পদ করে পুলিশ। এসব তথ্য নিশ্চিত করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও টেকনাফ মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাইফুল ইসলাম।

গত ১ জুলাই রাতে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ পশ্চিম সৈকত এলাকায় মাঝের পাড়া এলাকার উলা মিয়া মিস্ত্রির ছেলে জাফর আলমকে (১৮) ছুরিকাঘাত করে খুন করা হয়। এ খুনের ঘটনায় ৩ জুলাই টেকনাফ মডেল থানায় নিহতের ভাই সৈয়দ আলম বাদী হয়ে দক্ষিণ পাড়া এলাকারর সৈয়দ করিমের ছেলে মো. ইলিয়াছ, একই এলাকার আব্দুল্লাহর ছেলে মো. ফারুক, জহির বলির ছেলে ইমান হোসন, বজুর মিয়ার ছেলে মো. রশিদ, দুদু মিয়ার ছেলে মো. রফিক, হাবিরানের ছেলে মো. হেলাল, মাঝর পাড়া এলাকার মৃত গুরা মিয়ার ছেলে মৌ ইউনুচ ও তার ছেলে মো. ইসহাকসহ আরো অজ্ঞাত ৩/৪ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।

টেকনাফ মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, এ হত্যা মামলার সাথে জড়িত অন্যতম আসামি মো. ইলিয়াছের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। যার ফলে মামলার তদন্তের অগ্রগতি অনেক দূর এগিয়ে গেছে বলে জানায়।


মন্তব্য