kalerkantho


ফেনীতে নিখোঁজ আওয়ামী লীগ নেতা মিশু সিলেটে উদ্ধার

ফেনী প্রতিনিধি    

১৭ জুলাই, ২০১৭ ১৮:০৪



ফেনীতে নিখোঁজ আওয়ামী লীগ নেতা মিশু সিলেটে উদ্ধার

ফেনী থেকে নিখোঁজ আওয়ামী লীগ নেতা ও ব্যবসায়ী নূর হোসেন মিশুকে (৪২) সিলেটের দক্ষিণ সুরমার কদমতলী রেলওয়ে স্টেশন এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ সোমবার সকাল ৯টার দিকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

বিকেলে এ রিপোর্ট লেখার সময় তিনি কদমতলী পুলিশ ফাঁড়িতে বিশ্রামে ছিলেন।

মিশু জানান, ছয় মুখোশধারী যুবক তাকে মাইক্রোবাসে তুলে অজ্ঞান করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। তারা তাকে মারধরও করে। আজ সোমবার সকালে তারা দক্ষিণ সুরমার কোনো একটি এলাকায় তাকে ছেড়ে দিয়ে চলে যায়। বিকেলে মিশু টেলিফোনে কালের কণ্ঠকে জানান, গত বুধবার বিকেলে তিনি মাগরিবের নামাজ পড়তে ফেনী শহরের বারাহিপুর ভূঁঞা বাড়ির নিজ বাসা থেকে বের হন। বাসা থেকে কয়েক শ গজ যাওয়ার পর একটি মাইক্রোবাসে কয়েকজন মুখে রুমাল পরা যুবক তার গতিরোধ করে তাকে গাড়িতে তুলে নেয় এবং সাথে সাথে চেতনানাশক ওষুধ শুঁকিয়ে দিয়ে অজ্ঞান করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার বিকেলে তার সামান্য হুঁশ ফিরে এলে তিনি একটি বন্ধ কক্ষে নিজেকে আবিষ্কার করেন। তবে এটি কোন জায়গা তিনি বলতে পারেননি। অপহরণকারীরা সংখ্যায় ছয়জন ছিল বলে জানান মিশু।

তাদেরকে চিনতে পারেননি তিনি।

মিশু বলেন, "তারা আমার কাছে মোবাইল ফোন দিতে বলে। কিন্তু আমি বাসা থেকে বের হওয়ার সময় ফোন বাসায় রেখে আসি। এটা জানার পর তারা আমাকে কিল-ঘুঁষি মারতে থাকে। বাসায় স্ত্রী বা বড় ভাইয়ের নম্বরও জানতে চাইলে আমি বলি, তাদের নম্বর আমার মুখস্ত নেই। এরপর আবারও মারধর করা হয়। " তারা নম্বর না পাওয়ায় মুক্তিপণ চাইতে পারেনি বলে জানান মিশু। তিনি বলেন, "বড় ভাইয়ের কাছে জেনেছি, আমি নিখোঁজ হওয়ার পর যেভাবে কালের কণ্ঠসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি প্রকাশ ও প্রচারিত হয়, সেকারণেই তারা আমাকে ছেড়ে পালিয়ে যায়। " তিনি জানান, আজ সোমবার সকাল ৮টার দিকে তারা সিলেট থেকে কয়েক কিলোমিটার দক্ষিণে দক্ষিণ সুরমার কদমতলী রেলওয়ে স্টেশনের কাছে আমাকে ছেড়ে দিয়ে মাইক্রোবাস নিয়ে পালিয়ে যায়। আমি ক্ষুধার্ত ও ক্লান্ত ছিলাম। এক ব্যক্তির কাছ থেকে ফোন নিয়ে কোনোমতে বাড়িতে খবর দিই। খবর পেয়ে কদমতলী ফাঁড়ির পুলিশ সদস্যরা আমাকে উদ্ধার করে ফাঁড়িতে নিয়ে যান।

দক্ষিণ সুরমার কদমতলী পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামাল উদ্দিন বলেন, "মিশুকে মারধর করা হয়েছে- এমন লক্ষণ শরীরে বিদ্যমান রয়েছে। তাকে ডাক্তার দেখিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এখন তিনি পূর্ণ বিশ্রামে রয়েছেন। " মিশুর বড় ভাই নুরুল ইসলাম বলেন, "খবর পেয়ে ফেনী থেকে একটি মাইক্রোবাস নিয়ে আমাদের ঘনিষ্ঠ স্বজন আবুল কাশেম, শাহজাহান, মঞ্জু, মোশাররফ হোসেন ও সফিকুর রহমান আজ সোমবার সকালেই সিলেটের উদ্দেশে রওনা হয়ে গেছে। " আগামীকাল মঙ্গলবার দুপুরের আগেই তারা মিশুকে নিয়ে ফেনীতে ফিরে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

মিশুর স্ত্রী আছিয়া খাতুন চুমকী স্বামীকে উদ্ধারের জন্য কদমতলী ফাঁড়ির পুলিশ সদস্যদের প্রতি ও গণমাধ্যমের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। ফেনী মডেল থানার ওসি রাশেদ খান চৌধুরীও স্বস্তি প্রকাশ করে বলেন, "মিশুকে ফিরিয়ে আনার পর এ ব্যাপারে যথাযথ তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি  ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রসঙ্গত, ফেনী পৌর আওয়ামী লীগের সহ প্রচার সম্পাদক ও পৌর এলাকার ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক, ফেনী শহরের ট্রাংক রোডের জুতা ব্যবসায়ী নূর হোসেন মিশু গত বুধবার বিকেলে ফেনীর বারাহিপুর ভূঞা বাড়ির নিজ বাসা থেকে নামাজ পড়তে যাওয়ার কথা বলে নিখোঁজ হন।  


মন্তব্য