kalerkantho


চুরির অপবাদে বস্তায় ঢুকিয়ে শিশুকে মারধর

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ মে, ২০১৭ ২২:৫৮



চুরির অপবাদে বস্তায় ঢুকিয়ে শিশুকে মারধর

ঝালকাঠি সদরে চুরির অপবাদে এক শিশুকে বস্তায় ঢুকিয়ে মারধরের অভিযোগ উঠেছে গ্রামের সালিশকারীদের বিরুদ্ধে। সাগর হাওলাদার (১৩) নামে ওই শিশু জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। গত ১৪ মে সন্ধ্যায় এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় আজ শুক্রবার পুলিশ আলিপুর গ্রামের সেলিম কারিগরের ছেলে হৃদয় কারিগর (১৯) ও মোনাজউদ্দিনের ছেলে জামাল হাওলাদারকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে।   

সাগর সদর উপজেলার কীর্তিপাশা ইউনিয়নের আলিপুর গ্রামের মৃত সুলতান হওলাদারের ছেলে। সে স্থানীয় আলিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।  

এ বিষয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাগর বলে, “আমাকে বস্তার মধ্যে ঢুকিয়ে ওরা সারা শরীরে লাঠি দিয়ে মেরেছে। এরপর আর আমার মনে নাই। ”

সাগরের মা রাশিদা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, “অজ্ঞান অবস্থায় আমার ছেলেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছি। যারা আমার এইটুক ছেলেকে অমানুষের মতো নির্যাতন করেছে আমি তাদের বিচার চাই। ”

এদিকে সাগরের বড় বোন রাবেয়া আক্তার সুমি বলেন, নির্যাতনকারীদের মধ্যে একজন তাকে উত্ত্যক্ত করত। তিনি প্রত্যখ্যান করায় প্রভাব প্রভাবশালীদের যোগসাজশে ১০/১৫ জন মিলে তার ভাইয়ের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ সাজিয়ে নির্যাতন করেছে।

এ ব্যাপারে ঝালকাঠি সদর থানার পরিদর্শক তাজুল ইসলাম জানান, গত রবিবার আলিপুর গ্রামের জামে মসজিদের ইমাম মোস্তফা কামালের দুই হাজার টাকা চুরি হয়। ওই দুপুরে ইমামের বাড়ির কাছের পুকুরে গোসল করছিল শিশু সাগর। সন্ধ্যায় এলাকার ১০/১৫ জন সাগরকে তার বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। বাড়ির কাছেই একটি খালের পাড়ে নিয়ে শিশুটিকে তারা লাঠি দিয়ে পেটায় বলে পরিবারের অভিযোগ।

ঝালকাঠি থানার ওসি তাজুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনা শোনার পরই শুক্রবার সকালে অভিযান চালিয়ে ওই গ্রামের হৃদয় কারিগর ও জামাল হাওলাদারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, শিশুটির বড় ভাই ইব্রাহিম হাওলাদার নয়জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। অপর আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

ঝালকাঠি সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার মেহেদী হাসান বলেন, শিশুটির ডান পায়ের হাড় আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে। এছাড়া হাতের কব্জি ও বাহুতে আঘাতের চিহ্ন আছে। তবে শিশুটি এখন শঙ্কামুক্ত। তাকে সব রকম চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে।


মন্তব্য