kalerkantho


মেহেরপুরে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

মেহেরপুর প্রতিনিধি    

১৭ মার্চ, ২০১৭ ১৭:৫৩



মেহেরপুরে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

মেহেরপুর শহরের শিশু বাগানপাড়ায় জেমি খাতুন (২৫) নামের এক অন্তঃসত্ত্বা  গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি সদর উপজেলার রাইপুর গ্রামের বাদশা মিয়ার মেয়ে। আজ শুক্রবার ভোরে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত গৃহবধূর পরিবারের অভিযোগ, স্বামীর পরকিয়া প্রেমের প্রতিবাদ করায় তাকে নির্যাতন করে হত্যা শেষে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা করা হয়েছে। নিহত গৃহবধূর সাত বছর বয়সের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে।

নিহত জেমি খাতুনের ভাই মো. রকি জানান, ৯ বছর আগে তার বোন জেমি খাতুনের বিয়ে হয় শহরের শিশুবাগান পাড়ার আব্দুল খালেকের ছেলে রানার সঙ্গে। সংসার জীবনে তাদের একটি সাত বছরের পুত্র সন্তান রয়েছে। সম্প্রতি রানা অন্য একটি মেয়ের সঙ্গে পরকিয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়লে জেমি তার প্রতিবাদ করে। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে রানা বৃহস্পতিবার বিকেলে জেমিকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। পরে রাতে এসে পুনরায় তাকে মারধর করে মারা গেছে ভেবে রান্না ঘরের চালার সঙ্গে  গলায় ওড়না জড়িয়ে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রচারণা চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ আজ শুক্রবার ভোরে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে মেহেরপুর মর্গে পাঠায়।

রকি বলেন, "আমার বোনের হত্যাকারীদের বিচার চাই। "

এদিকে,ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত রানা পলাতক থাকায় তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

মেহেরপুর সদর থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, খবর পেয়ে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে আজ বিকেলে গৃহবধূর বাবার পরিবারের লোকজনের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি জানান, মেয়েটিকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে বলে শুনেছেন তিনি।

 


মন্তব্য