kalerkantho


চুয়াডাঙ্গায় মাঠদিবসে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি   

১৫ মার্চ, ২০১৭ ২২:৫৬



চুয়াডাঙ্গায় মাঠদিবসে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার

কাস্তে দিয়ে হাতে আর ধান-গম কাটা নয়। ধান-গম কাটা হবে মেশিনে।

কাটার সাথে সাথেই তা মাড়াই করে বস্তায় ভরে ফেলা হবে। সব হবে এক মেশিনেই। এতে কাটা ও মাড়াইয়ের খরচ কমে আসবে অর্ধেকে। সময়ও বাঁচবে। এ বিষয়ে কৃষকদেরকে উদ্ভুদ্ধকরণ এক মাঠদিবস আজ বুধবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গার সুবদিয়া মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে এলাকার ৫ শতাধিক কৃষক উপস্থিত ছিলেন।  

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার খেজুরা ব্লকের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল করিম জানান, অনুষ্ঠানে উপস্থিত কৃষিবিদরা তাদের বক্তব্যে কৃষকদের উদ্দেশ্যে ধান-গম কাটা মেশিনের সুবিধা এবং সরকারি ভর্তুকির বিষয় বুঝিয়ে বলেন। তার আগে সদর উপজেলার সুবদিয়া গ্রামের আত্তাব আলীর জমির পাকা গম মেশিন দিয়ে কাটা ও মাড়াই করে বস্তায় ভরা দেখানো হয় কৃষকদের।  

পরে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক নির্মল কুমার দে।

প্রধান অতিথি ছিলেন কৃষি সন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সম্প্রসারণ) মো. মোশারফ হেসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর যশোর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক চন্ডিদাস কুন্ডু, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা তালহা জুবাইর মাসরুর, চুয়াডাঙ্গা সদরের কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা শারমিন আক্তার ও আফরিন বিনতে আজিজ প্রমুখ।  

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ধান-গম কাটা, মাড়াই ও বস্তায় ভরা মেশিনটির দাম সাত লাখ টাকা। কৃষকদের জন্য সাড়ে তিন লাখ টাকা ভর্তুকি দিয়ে সরবরাহ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কৃষকরা ইচ্ছা করলে কয়েকজন মিলে একটি মেশিন কিনে স্বল্প খরচে ও কম সময়ে ধান-গম কেটে মাড়াই করে বস্তায় ভরে নিতে পারবেন। বেশিরভাগ সময় ধান-গম কাটা মৌসুমে কাটা শ্রমিকের সংকট দেখা দেয়। মেশিন থাকলে এই সমস্যা আর দেখা যাবে না।  


মন্তব্য