kalerkantho


পটিয়ায় স্কুলে ঢুকে শিক্ষিকার দুই হাত ভাঙল বখাটে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ মার্চ, ২০১৭ ১৯:০৮



পটিয়ায় স্কুলে ঢুকে শিক্ষিকার দুই হাত ভাঙল বখাটে

চট্টগ্রামের পটিয়ায় এক বখাটে স্কুলে ঢুকে পিটিয়ে এক শিক্ষিকার দুই হাত ভেঙে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পুলিশ অভিযুক্ত আহসান উল্লাহ ওরফে টুটুল (২৫) নামের ওই বখাটেকে গ্রেপ্তার করেছে।

আজ মঙ্গলবার সকালে উপজেলার দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়নের পূর্ব ডেঙ্গাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।  

আহত শিক্ষিকা হলেন ওই স্কুলের সহকারী শিক্ষক মিসফা সুলতানা (২৩)। তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা হেনা আরা বেগম জানান, প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য মিসফাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। তাঁর দুই হাতই ভেঙে গেছে। এছাড়া শরীরের আরও কয়েকটি স্থান জখম হয়েছে।

এ ঘটনা প্রসঙ্গে ওই স্কুলের কয়েকজন শিক্ষক ও এলাকাবাসী জানান, আজ মঙ্গলবার সকাল সোয়া নয়টার দিকে আহসান ওই স্কুলে ঢুকে শিক্ষিকা মিসফা সুলতানাকে লোহার শাবল দিয়ে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকেন। এ সময় শিক্ষিকা আত্মরক্ষার্থে দৌড়ে স্কুলের মাঠে চলে গেলে সেখানেও তাঁকে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকেন আহসান। এক পর্যায়ে দক্ষিণ ভুর্ষি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য নাজিম উদ্দিনসহ স্কুলের অন্য শিক্ষক ও এলাকার লোকজন এগিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

হামলাকারী আহসান পূর্ব ডেঙ্গাপাড়া গ্রামের মৃত আনোয়ার হোসেনের ছেলে। তাঁর বাড়ি ওই স্কুলের পাশেই।  

এ বিষয়ে নাজিম উদ্দিন বলেন, ‘আমি পটিয়া যাওয়ার উদ্দেশে সড়কে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলাম। এ সময় চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করি। এ সময় আমার সঙ্গে অন্য শিক্ষক ও এলাকার লোকজন ছুটে আসেন। ’

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খোরশেদা বেগম বলেন, ‘বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে এক সপ্তাহ ধরে ওই বখাটে যুবক মিসফাকে উত্ত্যক্ত করত। এ বিষয়টি আমি ওই যুবকের পরিবারকে জানিয়েছি। এরপর ওর বড় ভাই গত শনিবার বিদ্যালয়ে এসে ক্ষমা চান। একই সঙ্গে ওই শিক্ষিকার বাবা মুক্তিযোদ্ধা নুর মোহাম্মদ উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানান। ’

পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নেয়ামত উল্লাহ বলেন, আহসানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি শিক্ষিকাকে পেটানোর কথা স্বীকার করেছেন। শাবলটি উদ্ধার করা হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষকরা মঙ্গলবারের নির্ধারিত সমন্বয় সভা বর্জন করে প্রতিবাদ সমাবেশ করে হামলাকারীর শাস্তি দাবি করেন।


মন্তব্য