kalerkantho


ভ্রাম্যমাণ আদালতের পৃথক অভিযান

ভোলায় জাটকা ইলিশসহ বিভিন্ন মাছের পোনা আটক

ভোলা প্রতিনিধি    

১৪ মার্চ, ২০১৭ ১৪:২৮



ভোলায় জাটকা ইলিশসহ বিভিন্ন মাছের পোনা আটক

ভোলা ও বোরহানউদ্দিনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের পৃথক অভিযানে বিপুল পরিমাণ  জাটকা ইলিশ, চিংড়িসহ বিভিন্ন মাছের পোনা আটক করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় সাতজনকে অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়।

সিলগালা করা হয় দোকান। ভোলা সদরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল মন্নান ও বোরহানউদ্দিনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আ. কুদদূস পৃথক ভ্রাম্যমাণ আদালতের নেতৃত্ব দেন।

বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আ. কুদদূস জানান, তাঁর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার গভীর রাতে উপজেলার কুঞ্জেরহাট, বরহানগঞ্জ বাজার এবং উদয়পুর রাস্তার মাথার বাজারে অভিযান চালায়। এ সময় ওইসব বাজার থেকে প্রায় চার মণ জাটকা ইলিশ, চিংড়িসহ বিভিন্ন ধরনের  মাছের পোনা জব্দ করে। এ সময় পাঁচ মাছ বিক্রেতাকে আটক করা হয়। এরা হলেন বোরহানউদ্দিন উপজেলার টবগী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের রফিক, একই ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের শামিম, হাসাননগর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের রহিম, চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিণ আইচা ইউনিয়নের হারুন ও তজুমদ্দিন উপজেলার মহিজল। পরে আটককৃতদের মৎস্য রক্ষা ও সংরক্ষণ আইন ১৯৫০ এর ৪ ও ৫ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে দুই হাজার টাকা করে মোট ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়। জব্দকৃত মাছের পোনা স্থানীয় এতিমখানা, মাদ্রাসা ও গরিব দুস্থদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

একই দিনে সদর উপজেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল মন্নানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ  আদালত শহরের উকিলপাড়ায় অভিযান চালিয়ে জাকির ট্রেডার্স সিলগালা করে দেন।

এ সময় জাকির ট্রেডার্সের সত্ত্বাধিকারী জাকির হোসেনের কাছ থেকে পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়। অটোরিকশা উৎপাদন ও বিক্রির অভিযোগে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে তাকে দণ্ডিত করা হয় বলে জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল মন্নান। একই আইনে রয়েল প্যাক ইলেকট্রনিক কম্পানি নামের একটি প্রতিষ্ঠানের সত্ত্বাধিকারী মো. ইউনুছকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত ও তার দোকানের মালামাল জব্দ করা হয়।     
 

 


মন্তব্য