kalerkantho


ধর্ষণের শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলো শিশু শ্রেণির ছাত্রী

মাদারীপুর প্রতিনিধি    

১৩ মার্চ, ২০১৭ ২২:১৩



ধর্ষণের শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলো শিশু শ্রেণির ছাত্রী

মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের পেয়ারপুর গ্রামে এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়ে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এই ঘটনায় মামলা হয়েছে।

আজ সোমবার বিকেলে পারিবারিকভাবে এই অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয়, পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের পেয়ারপুর গ্রামের ভ্যানচালকের মেয়ে স্থানীয় কুমড়াখালি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণির ছাত্রী (৫) গত ৮ মার্চ প্রতিদিনের মতো স্কুল থেকে বাড়িতে ফিরে বাড়ির পাশে খেলতে যায়।  

এ সময় প্রতিবেশি ফারুক খানের ছেলে বলাইকান্দি জুনিয়র হাই স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র সোহাগ খা (১৬) চকলেটের কথা বলে ঐ শিশুকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর পাশেই একটি কলাই এর ক্ষেতে নিয়ে জোর করে ধর্ষণ করে। এ সময় ঐ শিশুটি অসুস্থ্য হয়ে পড়ে।  

ঘটনায় পর ধর্ষক সোহাগ পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা শিশুটির কান্নার শব্দ পেয়ে তাকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে আসে। পরে বিকেলে শিশুটিকে গুরুতর অবস্থায় মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে শিশুটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।

ঘটনার পরের দিন ৯ মার্চ শিশুটির মা বাদী হয়ে মাদারীপুর সদর থানায় মামলা করেছে। এ ব্যাপারে শিশুটির বাবা কেদে কেদে বলেন, লোক লজ্জার ভয়ে এতো দিন কাউকে কিছু বলিনি। আমার এতটুকু একটা মেয়েকে ধর্ষণ করা হলো আমি এর বিচার চাই।

শিশুটির মা বলেন, আমার মেয়ে এমনিতেই অসুস্থ্য। তার পেটে সমস্যা আছে। এখন আবার এতো বড় একটা ঘটনা ঘটলো। কি করবো বুঝতে পারছিনা। সমাজে আমরা কিভাবে মুখ দেখাবো জানিনা। আমি ধর্ষকের কঠিন বিচার চাই।

মাদারীপুর জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মাহমুদা আক্তার কণা বলেন, ঘটনার কথা আমি জানিনা। এখন শুনলাম। এ ব্যাপারে আমি ঐ পরিবারকে আইনগতভাবে সব ধরণের সহযোগিতা করবো।

মাদারীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা মো. জিয়াউল মোর্শেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। আশা করছি দ্রুত গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে।  


মন্তব্য