kalerkantho


শেরপুরে সৎমাকে হত্যার দায়ে যুবকের যাবজ্জীবন

শেরপুর প্রতিনিধি    

১৩ মার্চ, ২০১৭ ১৭:২৭



শেরপুরে সৎমাকে হত্যার দায়ে যুবকের যাবজ্জীবন

শেরপুরে সৎমাকে হত্যার দায়ে সারোয়ার হোসেন সবুজ ওরফে বাবু (২৭) নামের এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয়  মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ সোমবার দুপুরে শেরপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ মোসলেহ্ উদ্দিন এ দণ্ডাদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত বাবু নালিতাবাড়ী উপজেলার যোগানিয়া কান্দাপাড়া এলাকার হযরত আলীর ছেলে। ঘটনার পর থেকেই বাবু হাজতবাসে রয়েছেন। এ নিয়ে আট দিনের ব্যবধানে একই আদালতে চার মামলায় সাতজনের যাবজ্জীবন ও একজনের ১০ বছরের  কারাদণ্ড হলো।

অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট ইমাম হোসেন ঠাণ্ডু জানান, ২০১১ সালের ২১ সেপ্টেম্বর সকালে নালিতাবাড়ী উপজেলার যোগানিয়া কান্দাপাড়া এলাকার গৃহকর্তা হযরত আলীর দ্বিতীয় স্ত্রী রাশিদা বেগমকে কুপিয়ে হত্যা করেন প্রথম স্ত্রীর সন্তান সারোয়ার হোসেন সবুজ ওরফে বাবু। ওই ঘটনায় রাশিদার বড় ভাই রজব আলী বাদী হয়ে নালিতাবাড়ী থানায় সৎছেলে বাবুসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার পরের দিনই পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন বাবু। আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন তিনি।

তদন্ত শেষে একই বছরের ১৫ ডিসেম্বর একমাত্র বাবুর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মোখলেসুর রহমান। মামলার দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়ায় বাদী, আসামির জবানবন্দি গ্রহণকারী ম্যাজিস্ট্রেট, চিকিৎসকসহ ১১ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে অভিযোগ সন্দোহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় বাবুর বিরুদ্ধে এ রায় ঘোষণা করা হলো।

মামলাটি রাষ্ট্রপক্ষে অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট ইমাম হোসেন ঠাণ্ডু ও আসামি পক্ষে অ্যাডভোকেট পংকজ কুমার নন্দী পরিচালনা করেন।

 


মন্তব্য