kalerkantho


লক্ষ্মীপুরে স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি    

১৩ মার্চ, ২০১৭ ১৫:৪৮



লক্ষ্মীপুরে স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

লক্ষ্মীপুরে স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামী সুমন ওরফে লিটনের (৩০) মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ সোমবার দুপুর ১টার দিকে জেলা ও দায়রা জজ ড. আবুল কাশেম এ রায় দেন।

এ সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। লক্ষ্মীপুর আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) জসিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্র জানায়, কমলনগর উপজেলার চর কাদিরা গ্রামের রাশেদা বেগম মুক্তাকে (২৩) ২০০৯ সালের কুমিল্লার নাঙ্গল কোর্ট উপজেলার সুমন ওরফে লিটন বিয়ে করেন। ২০১৪ সালের শেষের দিকে তারা চার বছরের শিশুকন্যা সূবর্ণাকে নিয়ে কমলনগরের বাড়িতে আসেন। একপর্যায়ে সুমন বাড়ির পার্শ্ববর্তী ইটভাটায় কাজ নেন। যৌতুকের দাবি ও কারণে-অকারণে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দাম্পত্য কলহ দেখা দেয়। স্ত্রীকে মারধর করায় স্থানীয়ভাবে একাধিকবার সালিসি বৈঠক হয়।

২০১৫ সালের ৯ মার্চ রাতে তারা ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। ভোরে দুজনের ধস্তাধস্তির আওয়াজ শুনে ঘুম থেকে উঠে যান পাশের ঘরে থাকা রাশেদার বোন পেয়ারা বেগম।

এ সময় স্বামী লিটন দৌড়ে পালিয়ে যান। পরে পরিবারের লোকজন রাশেদার গলা কাটা রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখেন। এ ঘটনায় পরদিন নিহতর ভাই আবদুর জাহের বাদী হয়ে কমলনগর থানায় সুমনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ সাক্ষ্যগ্রহণ ও শুনানি শেষে স্বামীর মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন।

 


মন্তব্য