kalerkantho


নির্বাচনে যেভাবে হোক নৌকা মার্কার প্রার্থীকে পাস করাতে হবে : নসরুল হামিদ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ মার্চ, ২০১৭ ২০:২৩



নির্বাচনে যেভাবে হোক নৌকা মার্কার প্রার্থীকে পাস করাতে হবে : নসরুল হামিদ

আগামী নির্বাচনে যেভাবে হোক নৌকা মার্কার প্রার্থীকে পাস করাতে হবে। না হলে হাওয়া ভবন বানিয়ে দেশে লুটপাট শুরু হয়ে যাবে।

আগামী বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে দেশের প্রতিটি গ্রাম বিদ্যুতায়িত হবে। আজ বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলের কার্যক্রম পরিদর্শনে এসে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এসব কথা বলেন।

নসরুল হামিদ বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে যেভাবে হোক নৌকা মার্কার প্রার্থীকে পাস করাতে হবে। না হলে হাওয়া ভবন বানিয়ে লুটপাট শুরু হয়ে যাবে। ইলেকশনে যদি নৌকায় না ভোট দিই, তাহলে যা কাজকর্ম দেখা যাচ্ছে সব বন্ধ হয়ে যাবে। নৌকা মার্কা না থাকলে এলাকার উন্নয়নকাজ সব বন্ধ হয়ে যাবে। ’ 

তিনি আরো বলেন, ‘২০১৮ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে সারা বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামে ইনশা আল্লাহ বিদ্যুৎ দিয়ে দেব। ’

মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল সম্পর্কে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কাজের ধারাবাহিকতা রাখতে হবে। লাখ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে।

বিদেশিরা আসবে, অর্থনৈতিক অঞ্চল গ্রো করবে। বিশাল কার্যক্রম গ্রো করবে। ’ 

এ সময় বিদ্যুতের জন্য অধিগ্রহণ করা জায়গা দ্রুত বুঝিয়ে দিতে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আগামী এক বছরের মধ্যে জায়গাটা বুঝিয়ে দিন, শিগগিরই এখানে বিদ্যুতের প্ল্যান্ট বসাতে পারব। ’ 

বেজার মুখ্য সমন্বয়কারীর উদ্দেশে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বিদ্যুৎ নিয়ে আসতেছি আমরা। আসার সঙ্গে সঙ্গে যেন গ্রামগুলোতে দিতে পারি। যেটা আমরা রামপালে করেছি, অন্য এলাকায় করেছি। ’

বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরীর সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ, ভূমি মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মেছবাহ উল আলম, বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব অশোক মাধব রায়, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব আহমদ কায়কাউস, পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ইসতিয়াক আহমদ, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক দৌলতোজ্জামান খান।

 


মন্তব্য