kalerkantho


পরীক্ষার ফি দিতে না পারা শিক্ষার্থীকে ফের বিদ্যালয়ে ভর্তি

জামালপুর প্রতিনিধি   

৭ মার্চ, ২০১৭ ২২:৪২



পরীক্ষার ফি দিতে না পারা শিক্ষার্থীকে ফের বিদ্যালয়ে ভর্তি

চতুর্থ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার ফি দিতে না পারায় অনজু মিয়া নামের এক দিনমজুর পুত্রের ৫ম ভর্তি বাতিল করে শিশুটিকে বিদ্যালয় থেকে তাড়িয়ে দিয়েছিলেন প্রধান শিক্ষক সেরাতুল মনিরা।

অপরদিকে আনজু মিয়া নামের ওই ছাত্রকে ভর্তি করানোর অপরাধে একই বিদ্যালয়ের প্রবীণ সহকারী শিক্ষককে শারীরিক ও মানসিকভাবেও লাঞ্ছিত করেছিলেন একই প্রধান শিক্ষক। এতে প্রায় একমাস ধরে দিনমজুর পুত্র অনজু মিয়ার লেখাপড়া বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার শেখপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এ ঘটনাটি গত ৪ মার্চ শনিবার কালেরকন্ঠে প্রচারের পর ওই ঘটনার তদন্তকারী দল ওই শিক্ষার্থীকে ফের বিদ্যালয়ে ভর্তি করেছেন।  

শেখপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো: শহিদুল্লাহ সহ এলাকাবাসীর লিখিত অভিযোগে জানাগেছে, বিদ্যালয়টিতে আজ থেকে ৬ বছর পূর্বে যোগদান করেছেন প্রধান শিক্ষক সেরাতুল মনিরা। তিনি যোগদানের পর থেকেই বিদ্যালয়টিতে নানা অনিয়ম, দুর্নীতি ও ক্ষমতা অপব্যবহার করে চলেছেন। প্রধান শিক্ষক সেরাতুল মনিরাকে পরীক্ষার ফি দিতে না পারায় ওই বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র অসহায় দিনমজুরর পুত্র অনজু মিয়ার ভর্তি বাতিল করে তাকে বিদ্যালয় থেকে তাড়িয়ে দিয়েছেন। এ ব্যাপারে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র অনজু মিয়ার দিনমজুর পিতা কাসিদ আলী উপজেলা ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট অভিযোগ করেছেন। ওই বিদালয়ের প্রধান শিক্ষক সেরাতুল মনিরার বিরুদ্ধে বিদ্যালয়টির উন্নয়নে সরকারের বরাদ্দকৃত টাকা আত্মসাৎসহ নানা অনিয়ম, দুর্নীতির অভিযোগও রয়েছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগে আরও জানান, প্রধান শিক্ষক সেরাতুল মনিরা বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্যদের নিয়ে কোন প্রকার মাসিক সভা না করেই কর্তৃপক্ষের কাছে ভুয়া মাসিক প্রতিবেদন দাখিল করেন। তিনি গত ডিসেম্বর মাসে ৩দিনের ছুটি নিয়ে ১৮দিন অনুপস্থিত থেকেও ভুয়া মাসিক প্রতিবেদন দাখিল করেছেন।


মন্তব্য