kalerkantho


পিরোজপুরে এক কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পিরোজপুর   

৭ মার্চ, ২০১৭ ০৩:০০



পিরোজপুরে এক কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জালাল হাওলাদার (৪৫) নামে এক কৃষককে হত্যা করেছে। সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার গৌরিপুর ইউনিয়নের উত্তর পৈকখালী গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। হত্যার রহস্য এখনো উন্মোচন হয়নি। তবে পুলিশ জানিয়েছে টাকা পয়সা লেনদেনের কারনে প্রতিপক্ষরা তাকে কুপিয়ে হত্যা করতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

নিহত জালাল উত্তর পৈকখালী গ্রামের আবদুল কাদের হাওলাদারের ছেলে। সে এক সন্তানের জনক।

থানা ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সন্ধ্যায় মাগরিবের নামাজ শেষে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা কৃষক জালালকে হাওলাদারকে অজ্ঞাত একটি মোবাইল নম্বর থেকে ফোনে ডেকে নিয়ে যায়। পরে গ্রামের সেলিম চৌকিদারের বসত বাড়ির পার্শ্ববর্তী বাগানে ধরে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ফেলে রেখে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।
 
স্থানীয়রা টের পেয়ে ওই কৃষককে বাগান থেকে আশংকাজনক অবস্থায় উদ্ধার উদ্ধার করে ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। সেখানে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। পরে রাত ৮টার দিকে পুলিশ নিহত কৃষকের লাশ হাসপাতাল থেকে উদ্ধার করে।

নিহত কৃষকের স্ত্রী পারুল বেগম দাবি করেছেন, তার স্বামী মারা যাওয়ার পূর্বে স্থানীয় জাহাঙ্গীর এবং মারুফ নামে দুই ব্যক্তি তাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। তাদের সাথে তার স্বামীর পূর্ব বিরোধ চলছিল।

এ ব্যাপারে ভান্ডারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ কামরুজ্জামান তালুকদার হত্যাকাণ্ডের বিষয় নিশ্চিত করে জানান, টাকা-পয়সা লেনদেনের কারণে এ হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হচ্ছে।

সর্বশেষ রিপোর্ট লেখার সময় রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনায় নিহতর পরিবারের পক্ষ হতে ভান্ডারিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।


মন্তব্য