kalerkantho


সিগারেট কিনতে ট্রেন থামালেন চালক!

মো. মিজানুর রহমান, বাগাতিপাড়া (নাটোর) থেকে   

৬ মার্চ, ২০১৭ ১৬:৫২



সিগারেট কিনতে ট্রেন থামালেন চালক!

ইঞ্জিনের কোনো ক্রটি নেই, এমনকি জরুরি অন্য কোনো সমস্যাও হয়নি। তবু  রেলগেইটে থেমে গেল ট্রেন। শুধু সিগারেট কিনতে তেলবাহী ওই ট্রেন থামালেন চালক। আজ সোমবার সকালে নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার মালঞ্চি রেলগেইটে এ ঘটনা ঘটে।

মালঞ্চি রেলগেইটের গেইটম্যানের দায়িত্বে থাকা মকব্বর হোসেন জানান, গেইটম্যান মেহেদী অসুস্থ থাকায় তার স্থলে দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি। সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১০টার দিকে নাটোরের দিক থেকে ছেড়ে আসা তেলবাহী একটি ট্রেন দেখে রেলগেইট বন্ধ করে দেন তিনি। কিন্তু ট্রেনটি গেইটের সামনে এসে হঠাৎ থেমে যায়। এ  সময় ওই ট্রেনের ইঞ্জিন থেকে একজন নেমে এসে রেলগেইটের পাশের সিগারেটের দোকান থেকে সিগারেট কিনে আবার উঠে যান। প্রায় তিন মিনিট ট্রেনটি এভাবে দাঁড়িয়ে থাকে। একসময় গেইটের দুই পাশে গাড়ির লম্বা লাইন পড়ে যায়।

রেলগেইটসংলগ্ন রানা অটো ওয়ার্কশপের কর্মচারী প্রত্যক্ষদর্শী রাকিব জানান, পথের মাঝে ট্রেন থামিয়ে সিগারেট কেনার ঘটনা তিনি এই প্রথম দেখলেন।

এতে তিনি অবাক হয়েছেন। তিনি বলেন, "দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ করেছেন চালক। " সিগারেট বিক্রেতা মহীদুল বলেন, "ওই লোক (চালক) আমার দোকানে সিগারেট নিতে এসে না পেয়ে ফিরে যান। " পাশের বকুল স্টোরের দোকান মালিক বকুল জানান, একজন লোক ট্রেন থেকে নেমে এসে তার দোকান থেকে ১০টি বেনসন সিগারেট কিনেছেন।

নাটোরের স্টেশন মাস্টার অশোক চক্রবর্তী বলেন, "তেলবাহী ৯৮২ নম্বর ট্রেনটি ১০টা ৫ মিনিটে নাটোর থেকে ছেড়ে যায়। পথের মাঝে এভাবে ট্রেন থামানোর কোনো নিয়ম নেই। " পাকশীর বিভাগীয় রেলওয়ে ব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার বলেন, "অযৌক্তিকভাবে ট্রেন থামিয়েছে। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখে দোষীকে রেলওয়ে আইনের আওতায় নেওয়া হবে। "


মন্তব্য