kalerkantho


মেঘনা নদী থেকে দুই মাটিকাটা শ্রমিকের লাশ উদ্ধার

শরীয়তপুর প্রতিনিধি   

৪ মার্চ, ২০১৭ ২২:০০



মেঘনা নদী থেকে দুই মাটিকাটা শ্রমিকের লাশ উদ্ধার

শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলার কুচাইপট্টি ইউনিয়নের খেজুরতলা নামক স্থানে মেঘনা নদী থেকে দুই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার রাতে নদী থেকে লাশ দুটি উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। ওই দুই ব্যক্তি হলেন সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার চয়রা গ্রামের শহীদুল ইসলামের পুত্র হাফিজুর রহমান (৩০) ও পাবনার চাটমোহর উপজেলার ছাইখোলা গ্রামের নওশের আলীর পুত্র মাহাবুব প্রামাণিক। তারা কুচাইপট্টি এলাকায় মাটিকাটা শ্রমিকের কাজ করতেন।

গোসাইরহাট থানা সূত্র জানায়, স্থানীয় একটি চক্র রাতের আঁধারে নদীর তীর থেকে মাটি কেটে ইট ভাটায় বিক্রি করছিল। ওই চক্রটি সিরাজগঞ্জ ও পাবনার শ্রমিক দিয়ে মাটিকাটার কাজ করাচ্ছিল। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি রাতে ওই চক্রটি আনুয়াকাঠি এলাকা থেকে ৪-৫ টি ট্রলার নিয়ে মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে এমন সংবাদে গ্রামবাসী তাদের বাঁধা দেয়ার জন্য সংঘবদ্ধ হচ্ছিল। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান পুলিশকে জানায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাটিকাটা শ্রমিকরা পালাতে থাকে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি ট্রলারসহ ২৪ জন শ্রমিকে আটক করে। পরে তাদের থানা থেকে ছেড়ে দেয়া হয়।

গতকাল শুক্রবার বিকালে এলাকাবাসী মেঘনা নদীতে দুটি লাশ ভাসতে দেখে। খবর পেয়ে গোসাইরহাট থানার পুলিশ রাতে মেঘনা নদীর তীরে খেজুরতলা এলাকায় গিয়ে লাশ দুটি উদ্ধার করে। লাশ দুটি ময়না তদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। খবর পেয়ে ওই দুই শ্রমিকের স্বজনেরা হাসপাতালের মর্গে ছুটে আসে।

গোসইরহাট উপজেলার কুচাইপট্টি ইউপির চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন স্বপন বলেন, দীর্ঘদিন থেকে একটি চক্র নদীর তীর থেকে মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছিল। বিষয়টি নিয়ে অনেকবার উপজেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় আলোচনা হয়েছে। গত ২৮ ফেরুয়ারি মাটি কাটার সময় গ্রামবাসী বাঁধা দিবে এমন খবর পেয়ে আমি পুলিশে খবর দেই। পুলিশ সেখান থেকে কয়েকজন শ্রমিককে আটক করেছিল। পরের দিন এলাকায় শুনতে পাই মাটিকাটার দুই শ্রমিক নিখোঁজ। বৃহস্পতিবার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নিয়ে ট্রলার যোগে মেঘনা নদীতে ওই স্থান পরিদর্শন করেছি। শুক্রবার লাশ উদ্ধারের কথা শুনতে পেয়েছি।

গোসাইরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী মাসুদ বলেন, ২৮ ফেব্রুয়ারি মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে একটি ট্রলারসহ ২৪ জন শ্রমিককে আটক করেছিলাম। তারা মুচলেকা দিয়ে থানা থেকে চলে যায়। শুক্রবার দুই ব্যক্তির লাশ মেঘনা নদী থেকে উদ্ধার করার পর তাদের মাটিকাটা শ্রমিক হিসেবে সনাক্ত করা হয়। এ বিষয়ে এখনও মামলা হয়নি। মামলা হলে আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হবে।  


মন্তব্য