kalerkantho


শেরপুরে ধর্ষণের ভিডিও ছড়ানো মামলায় সহযোগী গ্রেপ্তার

শেরপুর প্রতিনিধি   

৪ মার্চ, ২০১৭ ১৮:০৮



শেরপুরে ধর্ষণের ভিডিও ছড়ানো মামলায় সহযোগী গ্রেপ্তার

শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলায় কিশোরীর ধর্ষণের ভিডিও চিত্র মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে দেওয়ার চাঞ্চল্যকর মামলায় ঘটনার নায়ক ছামিদুল হকের সহযোগী রাশেদুল হককে (২৩) পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। আজ শনিবার দুপুরে পুলিশ তাকে বিচারিক হাকিমের আদালতে সোপর্দ করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের পুলিশ রিমান্ডের (পুলিশ হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ) আবেদন জানায়।

আদালতের বিচারক জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মোমিনুন্নেছা খানম আগামীকাল রবিবার রিমান্ড শুনানীর তারিখ ধার্য করেন। একই আদালত তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনের প্রেক্ষিতে ধর্ষিতা কিশোরীর জবানবন্দিও গ্রহণ করেন। তবে প্রধান আসামি ছামিদুল হক এখনও পলাতক রয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শ্রীবরদী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এমদাদুল হক আজ শনিবার আদালতে ধর্ষিতার জবানবন্দি গ্রহণের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বোর্ড গঠনের মাধ্যমে ধর্ষিতার ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য আবেদন করা হয়েছে। মামলার এক আসামীকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে রিমান্ড আবেদন জানানো হয়েছে। মূল আসামী ছামিদুলকেও গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।  

উল্লেখ্য, শ্রীবরদী উপজেলার টাঙ্গারপাড়া গ্রামের হতদরিদ্র পরিবারের কিশোরীকে (১৫) ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ করে তা মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ভিকটিমের বাবা গত ১ মার্চ শেরপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বাদী স্থানীয় ছামিদুল হক (২২) ও তার সহযোগী রাশেদুল হক (২৩) সহ অজ্ঞাতনামা আরও ২/৩ জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করেন। গতকাল শুক্রবার তা নিয়মিত মামলা হিসেবে রেকর্ড হয় এবং পুলিশ সহযোগী আসামী রাশেদুলকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে।


মন্তব্য