kalerkantho


পরিবহন ধর্মঘটে সারা দেশে জনজীবনে চরম দুর্ভোগ নেমে এসেছে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ মার্চ, ২০১৭ ১১:৪৮



পরিবহন ধর্মঘটে সারা দেশে জনজীবনে চরম দুর্ভোগ নেমে এসেছে

সারা দেশে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো চলছে পরিবহন ধর্মঘট। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকা এ ধর্মঘটের কারণে রাজধানীসহ সারা দেশে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। আর এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ। পরিবহন না থাকার কারণে হেঁটে গন্তব্যে যেতে হচ্ছে তাদের। স্বল্প দূরত্বের যাত্রীরা হেঁটে গন্তব্যে যেতে পারলেও দূরপাল্লার যাত্রীরা চরম বিপাকে পড়েছেন। জরুরি প্রয়োজন সত্ত্বেও যেতে পারছেন না তারা। অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে গন্তব্যে পৌঁছলেও বাড়তি কয়েকগুণ ভাড়া গুনতে হচ্ছে তাদের।

ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন বুধবার (১ মার্চ) রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে সরেজমিনে দেখা যায়, আন্তজেলার সব বাস কাউন্টার বন্ধ রয়েছে। পরিবহন শ্রমিকরা রাস্তায় অবস্থান গ্রহণ করেছে। যাত্রীবাহী কোনো বাস চলাচল করতে দিচ্ছে না তারা। ধর্মঘটের প্রথম দিন মঙ্গলবার শহর এলাকায় সীমিত পর্যায়ে গণপরিবহন চলাচল করতে দেখা গেলেও বুধবার তাও বন্ধ রয়েছে।

ফলে কর্মস্থলে পৌঁছতে পায়ে হেঁটেই যাচ্ছেন বেশির ভাগ কর্মজীবী।

বাস চলাচল বন্ধ থাকায় কয়েকগুণ বেশি ভাড়া হাঁকছেন রিকশাচালকরা। স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় দুই থেকে তিনগুণ বেশি ভাড়া দাবি করছেন তারা। নিরূপায় যাত্রীদের বাড়তি দামেই যেতে হচ্ছে গন্তব্যে। ধর্মঘটের কারণে রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে ভ্যানগাড়ি চলাচল করতে দেখা গেছে। রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, সায়দাবাদ থেকে গুলিস্তান পর্যন্ত ভ্যানে করে অনেকেই কর্মস্থলে যাচ্ছেন। প্রতিটিতে ৭-৮ জন করে যাত্রী বহন করছেন ভ্যানচালকরা। সায়দাবাদ থেকে গুলিস্তান পর্যন্ত প্রতিটি যাত্রীর কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে ২০ টাকা করে।

এদিকে শুধু রাজধানী ঢাকা শহরেই নয়, গণপরিবহন বন্ধ থাকার কারণে সারা দেশেই জনদুর্ভোগ দেখা দিয়েছে। পণ্য পরিবহন ব্যবস্থাও ভেঙে পড়েছে।
পরিবহন ধর্মঘটের আশু সমাধান না হলে দেশের অর্থনীতিতে বিরূপ প্রভাব পড়বে বলে আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

উল্লেখ্য, ছয় বছর আগে ২০১১ সালের ১৩ অাগস্ট মানিকগঞ্জে বাসের ধাক্কায় মাইক্রোবাস আরোহী চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও সাংবাদিক মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন মারা যান। সেই দুর্ঘটনার প্রেক্ষিতে দায়ের করা মামলায় ২২ ফেব্রুয়ারি মানিকগঞ্জের আদালত আসামি বাসচালক জামির হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। রায়ের পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। এর প্রতিবাদে পরিবহন শ্রমিকরা ধর্মঘটে নামেন।

তবে শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে আইনমন্ত্রী জনগণকে কষ্ট না দিয়ে কোন বক্তব্য থাকলে তা আদালতে উপস্থাপনের জন্য পরিবহন শ্রমিকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

অপরদিকে মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ধর্মঘটকে অযৌক্তিক দাবি করে তা দ্রুত প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন। কিন্তু শ্রমিকরা তাদের ধর্মঘট অব্যাহত রেখেছেন।


মন্তব্য